• খালেদা জিয়াকে আর কোন মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়নি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল আজ জানিয়েছেন, একটি দুর্নীতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে আর কোন মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়নি ।

মঙ্গলবার দুপুরে সচিবালয়ে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের একথা জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, 'খালেদা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়েই বন্দি রয়েছেন। তাকে অন্য মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়নি।' এ নিয়ে বিএনপির পক্ষ থেকে দেওয়া বক্তব্য 'সম্পূর্ণ মিথ্যা ও অপপ্রচার' বলে উল্লেখ করেন তিনি।

উল্লেখ্য, পুলিশ সদর দপ্তরের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার বরাত দিয়ে গতকালই বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকায় খবর প্রকাশ হয় যে, কুমিল্লায় দায়েরকৃত ২০১৫ সালের একটি নাশকতার মামলায় বেগম জিয়াকে গ্রেপ্তার দেখানো  হয়েছে ।

আজ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ব্যাখ্যা দিয়ে বলেছেন,'সংবাদমাধ্যমে খালেদা জিয়াকে শ্যোন অ্যারেস্টের যে খবর বেরিয়েছে তা সঠিক নয়।'

মন্ত্রী আরো জানান, 'জিয়া অরফারেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলা ছাড়াও খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় দায়ের করা বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি দুর্নীতি মামলা ও তেজগাঁও থানায় দায়ের করা গ্যাটকো দুর্নীতি মামলা রয়েছে। ওই দুটি মামলায় তার বিরুদ্ধে হাজিরা পরোয়ানা (প্রোডাকশন ওয়ারেন্ট) রয়েছে। উনি বর্তমানে জামিনে রয়েছেন। যদি তিনি নিয়মিত এসব মামলায় হাজিরা দেন তাহলে আর গ্রেফতার দেখানো লাগবে না।'

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, খালেদা জিয়া দুইবারের প্রধানমন্ত্রী। তার সামাজিক মর্যাদা আছে। সবকিছু বিবেচনা করেই তাকে পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হয়েছে। তাছাড়া, নতুন কারাগারে ফিমেল ওয়ার্ড নেই। কাশিমপুর ঢাকা থেকে অনেক দূরে। এসব দিক বিবেচনা করেই তাকে নাজিমুদ্দিন রোডের পুরাতন কারাগারে রাখা হয়েছে। জেল কোড অনুযায়ী যেসব সুবিধা পাওয়ার কথা খালেদা জিয়াকে তা সবই দেওয়া হচ্ছে বলেও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান।

এদিকে, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার কারামুক্তির বিষয়টি এখন সম্পূর্ণ আদালতের বিষয়। এ ব্যাপারে সরকার কোনো হস্তক্ষেপ করবে না।

মঙ্গলবার রাজধানীর এয়ারপোর্ট রোডে, বিআরটিএর নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ অভিযান পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, খালেদা জিয়ার জন্য মানুষ রাস্তায় নামেনি। মানুষ এখন আর আন্দোলনের মুডে নয়, নির্বাচনের মুডে আছে।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমরা চাই প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচন। সে জন্য বিএনপির মতো বড় দলের নির্বাচনে থাকাটা দরকার। আওয়ামী লীগ চায় না বিএনপি ভেঙে যাক, সে চেষ্টাও করবো না। বিএনপি ভাঙলে তার জন্য তারা নিজেরাই দায়ী হবে।#

পার্সটুডে/আব্দুর রহমান খান/ রেজওয়ান হোসেন/১৩  

 

২০১৮-০২-১৩ ১৯:১৬ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য