বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আইনজীবী ব্রিটিশ ‘হাউজ অব লর্ডস’ এর সদস্য লর্ড কার্লাইলকে দিল্লি বিমানবন্দর থেকে ফিরিয়ে দেয়ার খবরে বিস্ময় প্রকাশ করেছে বিএনপি।

আজ (বৃহস্পতিবার) এক বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, "বিশ্বের বৃহত্তম গণতান্ত্রিক দেশ ভারতে মুক্ত চিন্তা অনুশীলনের সঙ্গে এই ঘটনা সামঞ্জস্যপূর্ণ নয় বলে আমরা মনে করি।" 

মির্জা ফখরুল বলেন, "বেগম খালেদা জিয়াকে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার জন্য অন্যায়ভাবে কারারুদ্ধ করে এদেশে গণতন্ত্র অনুশীলনে যে বাধা সৃষ্টি করেছে তার প্রতিবাদ জানানোর জন্য বিশ্বখ্যাত আইনজীবী লর্ড কার্লাইল দিল্লিতে সংবাদ সম্মেলন করতে চেয়েছিলেন। বাংলাদেশ সরকার তাকে ভিসা না দেয়ার কারণেই লর্ড কার্লাইল ভারতে আসতে চেয়েছিলেন। তাকে ভারতে প্রবেশ করতে না দেয়ায় আমরা মর্মাহত। আমরা বিশ্বাস করি যে, বাংলাদেশে চলমান স্বৈরতান্ত্রিক দুঃশাসনের বিরুদ্ধে জনগণের অব্যাহত আন্দোলনের প্রতি মুক্ত বিশ্বের সমর্থন থাকবে।"

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

এর আগে, বিএনপি’র জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. মঈন খান রাজধানীকে এক আলোচনা অনুষ্ঠানে বলেছেন, সরকার বেগম জিয়াকে তার আইনি অধিকার থেকে বঞ্চিত করছে।

বিএনপির জ্যেষ্ঠ নেতা মঈন খান প্রশ্ন করেন, ব্রিটিশ আইনজ্ঞ লর্ড কার্লাইলকে কেন খালেদা জিয়ার পক্ষে আইনি পরামর্শ দেওয়ার সুযোগ দেওয়া হলো না? কেন তাঁকে বাংলাদেশের ভিসা দেয়া হয়নি? তাঁকে তো খালেদা জিয়ার আইনজীবী নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

ড. মঈন খান স্মরণ করিয়ে দেন, আওয়ামী লীগ কি নিজেদের ইতিহাস ভুলে গেছে? আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার সময় বিদেশ থেকে আইনজীবী নিয়োগ দেওয়া হয়নি? তাঁকে তো তখন বাংলাদেশে আসতে বাধা দেওয়া হয়নি।

বেগম খালেদা জিয়া

এদিকে, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় সাজার রায়ের বিরুদ্ধে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার দায়ের করা আপিল শুনানি ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে শেষ না হলে সময়ের প্রার্থনা বিবেচনা করা হবে বলে জানিয়েছেন দেশের সর্বোচ্চ আদালত। সে পর্যন্ত আবেদনটি (মুলতবি) রাখা হয়েছে।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার সদস্যর আপিল বিভাগ আজ এ আদেশ দেন।

তাছাড়া, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের কারাদণ্ডের বিরুদ্ধে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার করা আপিলের শুনানি ১৫ জুলাই পর্যন্ত মুলতবি করেছে হাইকোর্ট। একই সঙ্গে এ মামলায় খালেদা জিয়ার জামিনের মেয়াদ ১৯ জুলাই পর্যন্ত বাড়িয়েছে আদালত।

বৃহস্পতিবার বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেয়।

গত ৯ জুলাই জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় নিম্ন আদালতের সাজার বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার আপিলের শুনানি পিছিয়ে আজ ১২ জুলাই নির্ধারণ করেছিল হাইকোর্ট।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ডাদেশ দিয়ে রায় দেয় ঢাকার এটি বিশেষ আদালত। এরপর থেকে বেগম জিয়া নাজিমুদ্দিন রোডের পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারে একটি পরিত্যক্ত ভবনে বন্দী রয়েছেন। #

পার্সটুডে/আবদুর রহমান খান/আশরাফুর রহমান/১২

২০১৮-০৭-১২ ১৯:২৯ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য