• রুহুল কবির রিজভী
    রুহুল কবির রিজভী

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, আগামী নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার নিয়ে নির্বাচন কমিশনের তোড়জোড় দূরভিসন্ধিমূলক।

গতকাল নির্বাচন কমিশনের সচিব হেলাল উদ্দিন বলেছেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ১০০ টি আসনে ইভিএম ব্যবহারের পরিকল্পনা নিয়েছে ইসি। এর জবাবে

আজ (বুধবার) নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে  রিজভী উল্লেখ করেন, নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে সংলাপে সরকারীদল ছাড়া বিভিন্ন রাজনৈতিকদল, সুধীজন, পেশাজীবী সংগঠনগুলোর অধিকাংশই আগামী জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার না করার জন্য মতামত পেশ করেছিল। ইসিও দীর্ঘদিন ধরে বলে এসেছে সব দল না চাইলে ইভিএম ব্যবহার করা হবে না।

রিজভী বলেন, বেশিরভাগ রাজনৈতিক দল ও শ্রেণী-পেশার মানুষের মতামতকে উপেক্ষা করে তড়িঘড়ি করে আরপিও সংশোধনের মাধ্যমে ইভিএম ব্যবহারের উদ্যোগ দুরভিসন্ধিমূলক এবং রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।

ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন

ইভিএম আমরা মানি না: মোশাররফ

এদিকে, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, বাংলাদেশে ইভিএম কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়, ইভিএম আমরা মানি না। যেসব দেশে নির্বাচনে ইভিএম চালু করা হয়েছিল সেসব দেশে এই পদ্ধতি বাতিল করার প্রক্রিয়া চলছে।

বিএনপির এই জ্যেষ্ঠ নেতা আরো বলেন, আরপিও সংশোধনের যে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে তা থেকে বিরত থাকার জন্য বলব নির্বাচন কমিশনকে। অন্যথায় একদিন জনগণের আদালতে আপনাদের বিচার হবে।

আজ দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে স্বাধীনতা ফোরাম আয়োজিত ‘তড়িঘড়ি করে আরপিও সংশোধনের উদ্যোগ এবং বিতর্কিত ইভিএম পদ্ধতি চাপিয়ে দেওয়ার ষড়যন্ত্রে নাগরিক শঙ্কা’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির এ সদস্য এ কথা বলেন।

নির্বাচনের আগে সরকারের পদত্যাগ দাবি

অপরদিকে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে বর্তমান সরকারের পদত্যাগের দাবি জানিয়েছে বাম গণতান্ত্রিক জোট। এ সরকারের অধীনে কোনো সুষ্ঠু নির্বাচনও সম্ভব নয় বলেও মনে করেন এ জোটের নেতারা।

আজ সকালে রাজধানীর পল্টনের মুক্তিভবনে জোটের কর্মসূচি ঘোষণা উপলক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান।

সাইফুল হক

'ইভিএম নিয়ে ইসির পদক্ষেপ সন্দেহজনক'

জাতীয় নির্বাচনে ইসির ইভিএম (ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন) ব্যবহারের তোড়জোড় নিয়ে জোটের সমন্বয়ক সাইফুল হক বলেন, যেখানে অধিকাংশ রাজনৈতিক দল ইভিএমের বিপক্ষে, সেখানে ইসির এ ধরনের পদক্ষেপ সন্দেহজনক। মানুষের মনে এখন সন্দেহ জাগছে, সরকারি দলকে বাড়তি কোনো সুবিধা দিতে ডিজিটাল কারচুপির জন্য এই ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

সংবাদ সংবাদ সম্মেলনে বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক এবং বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও সাইফুল হক লিখিত বক্তব্যে তাদের বিভিন্ন দাবি তুলে ধরেন। দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে, তফসিল ঘোষণার আগে সরকারকে পদত্যাগ করে সব দল ও মতের ভিত্তিতে নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ তদারকি সরকার গঠন, তফসিল ঘোষণার আগে জাতীয় সংসদ ভেঙে দেওয়া, নির্বাচন কমিশনের পুনর্গঠন ও সংখ্যানুপাতিক প্রতিনিধিত্ব ব্যবস্থাসহ টাকা ও পেশিশক্তিনির্ভর নির্বাচনী ব্যবস্থার সংস্কার।

বাম গণতান্ত্রিক জোট সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবিতে আগামীকাল বৃহস্পতিবার থেকে সেপ্টেম্বর ও অক্টোবর মাসজুড়ে সারা দেশব্যাপী সভাসমাবেশ,বিক্ষোভ ও মতবিনিময় অনুষ্ঠান আয়োজনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। #

পার্সটুডে/আবদুর রহমান খান/আশরাফুর রহমান/২৯

ট্যাগ

২০১৮-০৮-২৯ ১৮:২৮ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য