বাংলাদেশের আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময় নির্বাচনকালীন সরকার গঠন প্রশ্নে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে মতপার্থক্য এখনো সমাধান হয়নি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পদত্যাগ ও নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকারের দাবিতেই বিএনপি’র নেতৃত্বাধীন প্রধান বিরোধী জোট অনড়। পক্ষান্তরে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ এ দাবিকে অসাংবিধানিক আখ্যায়িত করে তাদের দ্বারা সংশোধিত সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন অনুষ্ঠানের প্রশ্নে দৃঢ় অবস্থানে রয়েছে।   

বড় দুই দলের এমন বিপরীত মেরুতে অবস্থানের মধ্যে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত গতকাল জানিয়েছেন, আগামী ২০ দিনের মধ্যেই শেখ হাসিনার নেতৃত্বে স্বল্পসংখ্যক মন্ত্রী নিয়ে নির্বাচনকালীন সরকার গঠিত হবে।

বুধবার সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) নবনির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলররা সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে এলে তিনি বলেন, ‘নির্বাচনকালীন সরকারে বিএনপির থাকার কোনও সুযোগ নেই। কারণ বর্তমান সংসদে এ দলটির কোনও প্রতিনিধি নেই।’

আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২৭ ডিসেম্বর হতে পারে বলে আভাস দিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ভোটের তারিখ নির্বাচন কমিশন চূড়ান্ত করবে।

বদিউল আলম মজুমদার

সুজনের সন্দেহ

তবে, আসন্ন জাতীয় নির্বাচন সুষ্ঠ হবার ব্যাপারে সন্দেহ প্রকাশ করেছে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন)।

বুধবার রাজধানীতে এক সংবাদ সম্মেলনে সুজন সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার বলেছন, ‘বর্তমান নির্বাচন কমিশন এরই মধ্যে বিভিন্ন প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছে। পাঁচ সিটি নির্বাচন তারা সুষ্ঠু করতে পারেনি।  এ ধারা অব্যাহত থাকলে’ আগামী জাতীয় নির্বাচনও নিয়ন্ত্রিত হবে।

মির্জা ফখরুল ইসলাম

সরকার জনগণকে ভয় পাচ্ছে: ফখরুল

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম গতকাল রাজধানীতে এক আলোচনা সভায় বলেছেন, সরকার জনগণকে ভয় পায়, সেজন্য সুষ্ঠু নির্বাচন দিতেও ভয় পাচ্ছে। দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির পরই তারা নির্বাচনের কথা চিন্তা করবেন বলে জানান মির্জা ফখরুল ইসলাম।  

বুধবার দুপুরে রাজধানীতে ভিন্ন এক আলোচনা সভায় বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে বলেছেন, একা একা খেলে আপনি জয়লাভ করবেন এবার আর সেটা হবে না। মাঠে আমরা আছি আন্দোলনের মাঠেও থাকব নির্বাচনের মাঠেও থাকব ইনশাআল্লাহ।’

মোহাম্মদ নাসিম

ফাঁকা মাঠে গোল দেব: নাসিম

এর আগে, স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন, ২০১৪ সালে আপনারা মাঠে খেলেননি। এবারও যদি আপনারা খেলতে না নামেন তাহলে ফাঁকা মাঠেই ইনশাল্লাহ গোল দেওয়া হবে।

সোমবার রাজধানীতে এক অনুষ্ঠানে মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, খেলার যেমন নিয়ম আছে, তেমনি নির্বাচনের ক্ষেত্রেও নিয়ম আছে। হঠাৎ করে তা পরিবর্তন করা যায় না। সংবিধানের আলোকেই নির্বাচিত সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচন হবে। নির্বাচন কমিশন নির্বাচন পরিচালনা করবে। 

মার্শা ব্লুম বার্নিকাট

আমেরিকার অবস্থান

মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা ব্লুম বার্নিকাট বলেছেন, বাংলাদেশের মানুষের প্রত্যাশা অনুযায়ী একটি অংশগ্রহণমূলক ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন আশা করে আমেরিকা। বাংলাদেশের সরকারও এমন একটি নির্বাচন করতে চায় বলে মনে করেন তিনি। বুধবার সকালে পররাষ্ট্র সচিব শহিদুল হকের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন।

 

হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা

ভারতের অবস্থান

অপরদিকে, ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা বুধবার পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হকের সাথে তার কার্যালয়ে সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের বলেছেন, বাংলাদেশের আসন্ন জাতীয় নির্বাচন নিয়ে ভারত কোনো মন্তব্য করবে না।

“এটা বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার। এ বিষয়ে ভারত কোনো মন্তব্য না করার অবস্থান নিয়েছে।"

পার্সটুডে/আবদুর রহমান খান/আশরাফুর রহমান/৬

 

 

ট্যাগ

২০১৮-০৯-০৬ ১৬:১৫ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য