• ড. শহিদুল আলম
    ড. শহিদুল আলম

বাংলাদেশ সরকারের বিরুদ্ধে উসকানিমূলক বক্তব্য ও মিথ্যা তথ্য ছড়ানোয় অভিযোগে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের মামলায় কারাগারে থাকা খ্যাতিমান আলোকচিত্রী ড. শহিদুল আলমের জামিন নামঞ্জুর করেছে আদালত।

আজ (মঙ্গলবার) দুপুরে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কেএম ইমরুল কায়েসের আদালত এ আদেশ দেন। শহিদুল আলমের পক্ষে জামিন শুনানিতে তার আইনজীবীরা বলেন, তথ্য-প্রযুক্তি আইনের মামলা দায়েরের পর আসামিকে গ্রেপ্তার করতে হবে বলে আইনে বলা আছে। কিন্তু মামলা দায়েরের আগেই পুলিশ শহিদুল আলমকে বাসা থেকে তাকে ধরে নিয়ে যায়। এরপর মামলা দায়ের করে। তাছাড়া তার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়েছে তাও সত্য নয়।

তবে, রাষ্ট্রপক্ষে ঢাকা মহানগর পাবলিক প্রসিকিউটর আব্দুল্লাহ আবু জামিনের বিরোধিতা করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিন নামঞ্জুরের আদেশ দেন।
গত ৫ আগস্ট রাতে ধানমন্ডির বাসা থেকে ডিবি পরিচয়ে একদল লোক শহিদুলকে অপহরণ করে বলে অভিযোগ করেন তার স্ত্রী রেহনুমা আহমেদ।

উল্লেখ্য, দৃক গ্যালারির প্রতিষ্ঠাতা ড. শহিদুল আলম সাম্প্রতিক  ছাত্র বিক্ষোভ নিয়ে  একটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দিয়েছিলেন। ওই সাক্ষাৎকারে মিথ্যা তথ্য দিয়ে রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করা হয়েছে বলে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়।

এরপর ৬ আগস্ট শহিদুল আলমের সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত। রিমান্ড শেষে ১২ আগস্ট শহিদুল আলমকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেয়া হয়। এরপর থেকে তিনি কারগারে রয়েছেন।

মোজাম্মেল হক চৌধুরী

মোজাম্মেল হক চৌধুরীর জামিন মঞ্জুর

ওদিকে, চাঁদাবাজির অভিযোগে দয়ের করা এক মামলায় বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরীর জামিন আবেদন মঞ্জুর করেছে আদালত।

মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর হাকিম মাজহারুল হকের আদালতে জামিনের আবেদন করেন তার আইনজীবী। শুনানি শেষে আদালত তার জামিন আবেদন মঞ্জুর করে।

গত ৫ সেপ্টেম্বর নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরেরদিন তাকে এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত। রিমান্ড শেষে ৮ সেপ্টেম্বর মোজাম্মেল হকের ফের ৫ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ। আদালত রিমান্ড ও জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়।

ইতোমধ্যে গতকাল সোমবার (১০ সেপ্টেম্বর) কাফরুল থানার বিস্ফোরক আইনে ছ’মাস পুর্বে দায়ের করা একটি মামলায় (মামলা নম্বর ১৩(২)১৮) মোজাম্মেল হককে  গ্রেফতার দেখানোর জন্য ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে আবেদন করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। আদালত ১৩ সেপ্টেম্বর তদন্তকারী কর্মকর্তার উপস্থিতিতে শুনানির জন্য দিন ধার্য করেছে।##

পার্সটুডে/আবদুর রহমান খান/আশরাফুর রহমান/১১

ট্যাগ

২০১৮-০৯-১১ ১৯:৫১ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য