২০১৮-১২-১৩ ১৬:৪৩ বাংলাদেশ সময়
  • বেগম খালেদা জিয়া
    বেগম খালেদা জিয়া

বাংলাদেশের জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আর মাত্র ১৭ দিন বাকী। এ অবস্থায় আজকেও প্রধান বিরোধী জোটের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নির্বাচনে অংশগ্রহণের বিষয়টি আদালতের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় ঝুলে আছে। এ বিষয়ে, আগামী সোমবার পরবর্তী শুনানির দিন ঠিক করেছেন আদালত।

নির্বাচনে তিনটি আসনে প্রার্থীতা ফিরে পেতে বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার পৃথক রিট শুনানি শেষে গত মঙ্গলবার হাইকোর্টের একটি দ্বৈত বেঞ্চ বিভক্ত আদেশ দিলে প্রধান বিচারপতি গতকাল বুধবার তৃতীয় বিচারপতির আলাদা বেঞ্চ গঠন করেন।

বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য আজ বিচারপতি জে বি এম হাসানের নেতৃত্বাধীন একক বেঞ্চে শুনানি শুরু হয়। কিন্তু , শুনানির শুরুতেই খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা বিচারপতির প্রতি অনাস্থা জানান। তাদের দাবি, সিনিয়র বিচারপতির বিষয় জুনিয়র বিচারপতি শুনতে পারেন না, তাই তারা 'নো কনফিডেন্স' জানিয়েছেন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়ার প্রশ্নে  কারাবন্দি বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার দায়ের করা রিটের ওপর  হাইকোর্ট বিচারপতি সৈয়দ রেফাত আহমেদ ও মো. ইকবাল কবিরের দ্বৈত বেঞ্চ গত মঙ্গলবার একটি  বিভক্ত আদেশ দেন। ।

বেঞ্চের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি সৈয়দ রেফাত আহমেদ খালেদা জিয়ার মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন যে রায় দিয়েছিল, তা স্থগিত ঘোষণা করেন এবং কেন এই আদেশ অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, সেই মর্মে রুল জারি করেন। পাশাপাশি খালেদা জিয়ার মনোনয়নপত্র গ্রহণ করে তাঁকে বৈধ প্রার্থী হিসেবে ঘোষণার আদেশ আসে বেঞ্চের জ্যেষ্ঠ বিচারপতির কাছে থেকে।

তবে জ্যেষ্ঠ বিচারপতির আদেশের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেন বেঞ্চের অপর বিচারপতি মো. ইকবাল কবির। তিনি খালেদা জিয়ার আদেশ খারিজ করে দেয়ার মত দেন। নিয়ম অনুসারে, বিষয়টি প্রধান বিচারপতির কাছে যায়। প্রধান বিচারপতি এ বিষয়ে শুনানির জন্য তৃতীয় একটি বেঞ্চ গঠন করে দেন।#

পার্সটুডে/ আব্দুর রহমান খান/ বাবুল আখতার/১৩

 

 

ট্যাগ

মন্তব্য