২০১৮-১২-১৪ ১৭:২৬ বাংলাদেশ সময়
  • জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড.কামাল হোসেনের গাড়ি বহরে হামলা
    জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড.কামাল হোসেনের গাড়ি বহরে হামলা

বাংলাদেশের পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের কারো বেআইনি আদেশ না মানার আহবান জানিয়েছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন।

কেউ চিরদিন ক্ষমতায় থাকে না স্মরণ করিয়ে দিয়ে পুলিশ প্রশাসনের উদ্দেশে তিনি বলেন, যেসব পুলিশ গ্রেফতার করে চলেছে, তারা কেন এসব করছে? দেশে কোনো সংবিধান আছে বলে তো মনে হয় না। আসলে তারা বঙ্গবন্ধুর সংবিধানকে উপহাসের বস্তু বানিয়েছে।

আজ (শুক্রবার) বিকেলে রাজধানীর পুরানা পল্টনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ড. কামাল এসব কথা বলেন। মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা জানিয়ে ফেরার পথে হামলার শিকার হওয়া এবং সাম্প্রতিক রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট নিয়ে এ সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি।

Image Caption

হামলার শিকার হওয়া প্রসঙ্গে ড. কামাল হোসেন বলেন, এটা একটি সভ্য দেশ। যারা দেশ শাসন করছে, তাদের লজ্জা পাওয়া উচিত। আজ যারা হামলা করেছে, তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হোক।

বিএনপিসহ ঐক্যফ্রন্টের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করার অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, চিরদিন কেউ ক্ষমতায় থাকে না। আর কোনো সরকারও আইনের উর্ধ্বে না। এই সরকার আর ১৬ দিন ক্ষমতায় আছে। সুতরাং বেআইনি আদেশ কেউ মানবেন না।

এরআগে সকালে শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে ফেরার সময় ড. কামাল হোসেনের গাড়িবহরে হামলা হয় বলে গণফোরামের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়। তাদের দাবি, হামলায় কামালের গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত না হলেও বহরের পেছনে থাকা ঐক্যফ্রন্ট নেতা আ স ম আবদুর রব, জগলুল হায়দার আফ্রিক, ঢাকা-১৪ আসনে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী সিদ্দিক সাজুর গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এতে ১০-১২ জন আহত হন।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী

এদিকে, আওয়ামী লীগ সমর্থকদের হামলা থেকে রক্ষা পেতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কোনো সহায়তা না পাওয়ায় নিজেদেরই আত্মরক্ষা করতে হবে। এমন মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

আজ (শুক্রবার) সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির  কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে নেতাকর্মীদের উদ্দেশে এ কথা বলেন তিনি।

এ সময়, সমস্যার সমাধান না করে বা এর দায় না নিয়ে নির্বাচন কমিশনের তৃতীয় শক্তির কথা বলা রহস্যজনক বলেও মন্তব্য করেন রিজভী। তিনি বলেন, ইসি যদি সহিংসতা না চায় তাহলে সেনাবাহিনীকে ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতা দেয়া হোক। দেশের পুলিশ-ইসি এখন সরকারের সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে। আমরা রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ দুটি সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানের প্রধানকে লিখিত ও মৌখিক অবহিত করার পরও কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।#

পার্সটুডে/শামস মন্ডল/ গাজী আবদুর রশীদ/১৪

 

ট্যাগ

মন্তব্য