২০১৮-১২-১৬ ১৬:৩৮ বাংলাদেশ সময়
  • বিজয় দিবসে ঐক্যফ্রন্টের র‌্যালি; ধানের শীষে ভোট ও খালেদার মুক্তি দাবি

বাংলাদেশের ৪৮তম মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে রাজধানীতে ‘বিজয় র‌্যালি’ করেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। এতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না এবং গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরীসহ বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী অংশ নেন। শোভাযাত্রা থেকে জাতীয় নির্বাচনে ধানের শীষে ভোট আর বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে শ্লোগান দেন নেতাকর্মীরা।

আজ (রোববার) বেলা সাড়ে ১১ টায় রাজধানীর নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে শুরু হয় এ বিজয় শোভাযাত্রা। এরপর কাকরাইল মোড় হয়ে শান্তিনগর ঘুরে আবারও নয়াপল্টনে এসে শেষ হয়।

শোভাযাত্রার শুরুতে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ৪৮তম বিজয় দিবসটি হওয়ার কথা ছিল আনন্দের, উৎসবের। কিন্তু আমরা আজকে অত্যন্ত ভারাক্রান্ত, আতঙ্কিত, উৎকণ্ঠিত, কারণ এই দেশে গণতন্ত্র টিকে থাকবে কী, থাকবে না!

র‍্যালিতে মির্জা ফখরুলসহ ঐক্যফ্রন্টের নেতারা

নির্বাচন কমিশন নির্বাচন পরিচালনায় ব্যর্থ হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, নির্বাচনে সব রকম পক্ষপাতিত্ব শুরু করেছে সরকার। নজিরবিহীনভাবে বিরোধীদলের নেতাকর্মী, এমনকি প্রার্থীদেরকেও তারা গ্রেফতার করছে, মিথ্যা মামলা দিচ্ছে এবং তাদেরকে নির্বাচন থেকে বিরত রাখার চেষ্টা করছে। তবে, এভাবে নির্বাচন থেকে জনগণকে বিরত রাখা যাবে না।

আসন্ন নির্বাচনকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, এই নির্বাচনে সিদ্ধান্ত হবে বাংলাদেশের মানুষ স্বৈরতন্ত্রে থাকবে না কি গণতন্ত্রে ফিরবে। মানুষ স্বাধীনতার ফল ভোগ করতে পারবে কি, পারবে না। তাই এই নির্বাচনকে প্রহসনের নির্বাচন করবেন না।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, এ দেশে যত নির্বাচন হয়েছে, সমস্ত নির্বাচন ক্ষমতাসীনরা ছিনতাই করেছে। মানুষকে ভোট দিতে দেয়নি। প্রার্থীদের ওপর অত্যাচার করেছে, নির্যাতন করেছে, গ্রেফতার করেছে। দেখতে দেখতে পাঁচ বছর হয়েছে। সরকার মনে করেছিল যে, এই নির্বাচনটাও বোধ হয় ২০১৪ সালের মতো ওয়াকওভার পাবে। কিন্তু আমরা নির্বাচনে অংশ নিয়েছি, প্রার্থী দিয়েছি এবং তখন সরকারের মাথা খারাপ হয়ে গেছে।

সেলিমা রহমান

নির্বাচন কমিশন একটি পাপেট: সেলিমা

এদিকে, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান বলেছেন, নির্বাচন কমিশন সম্পূর্ণ একটি পাপেট। পুলিশ প্রশাসন নির্বাচন কমিশনের কথা শুনছে না। সরকার দশম সংসদের মতো আরেকটি একতরফা নির্বাচন করতে চাইছে।

আজ (রোববার) নির্বাচন ভবনে নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদের সঙ্গে সাক্ষাতের পর তিনি সাংবাদিকদের কাছে এমন মন্তব্য করেন। লিখিত অভিযোগপত্রে বিএনপি প্রার্থী মির্জা আব্বাস, মাহবুব উদ্দিন খোকন, গোলাম মওলা রনির স্ত্রীর ওপর হামলাসহ বিভিন্ন নির্বাচনী এলাকায় নেতাকর্মীদের নামে মামলা, গ্রেফতার ও হয়রানির বিষয় তুলে ধরা হয়। একইসঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী অপতৎপরতা এবং আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীদের মাধ্যমে আক্রমণ অবিলম্বে বন্ধের নির্দেশ দেয়ার দাবি জানানো হয়।

সেলিমা রহমান বলেন, ঢাকাতে এখন পর্যন্ত বিএনপির কোনো প্রার্থীকে প্রচারণায় নামতে দেয়া হচ্ছে না। পুলিশ যেন আমাদের প্রতিপক্ষ। তারা আমাদের মাঠে থাকতে দিচ্ছে না। ২০১৪ সালের মতো আবারও একতরফা নির্বাচন করতে চাইছে সরকার।#

পার্সটুডে/শামস মণ্ডল/আশরাফুর রহমান/১৬

খবরসহ আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত সব লেখা ফেসবুকে পেতে এখানে ক্লিক করুন এবং নোটিফিকেশনের জন্য লাইক দিন

ট্যাগ

মন্তব্য