২০১৯-০১-১২ ১৭:৪১ বাংলাদেশ সময়
  • সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন ওবায়দুল কাদের
    সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন ওবায়দুল কাদের

বাংলাদেশের ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, একাদশ জাতীয় নির্বাচনে পরাজয়ের কারণেই বিএনপি এখন নানা অভিযোগ করছে। কিন্তু এসব ধোপে টিকবে না।

আজ (শনিবার) সকালে রাজধানীর গুলিস্তানে সড়ক বিভাগের ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিদর্শনের গিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।  

গত ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ বিপুল জয়ী হয়ে টানা তৃতীয়বারের মতো ক্ষমতায় এসেছে। ৩০০ আসনের মধ্যে আওয়ামী জোট পেয়েছে ২৮৬টি এবং বিরোধীপক্ষ বিএনপি নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট পেয়েছে মাত্র আটটি আসন।  ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ করেছে এবং পুনরায় নির্বাচনের দাবি তুলেছে।  

এই পরিপ্রেক্ষিতেই ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সরকার গঠনের আগেই গণতান্ত্রিক বিশ্বের অভিনন্দন আমাদের প্রধানমন্ত্রী পেয়ে গেছেন। কাজেই নির্বাচন নিয়ে যারা আজকে অভিযোগ তুলেন, তাঁরা নির্বাচনে হেরে গেছেন বলেই হেরে যাওয়ার বেদনা থেকেই এসব অভিযোগ, এসব প্রশ্ন তুলছেন। কারণ তাদের এ অভিযোগ ধোপে টেকে না। এটার কোনো বাস্তবতা নেই। এটার কোনো যৌক্তিকতাও নেই। দেশে-বিদেশে কোথাও এর কোনো স্বীকৃতি নেই। জনগণ খুব খুশি।'

রুহুল কবির রিজভী

সরকার দেশকে গৃহযুদ্ধের দিকে ঠেলে দিচ্ছে: রিজভী

এদিকে, বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, সারাদেশে বিরোধী দল, মত ও বিশ্বাসের মানুষরা সরকারি সন্ত্রাসবাদে আক্রান্ত। সরকার মনে হচ্ছে, দেশকে গৃহযুদ্ধের দিকে ঠেলে দিচ্ছে।

শনিবার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনের বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে রিজভী বলেন, ৩০ ডিসেম্বরের আগের দিন অন্ধকার রাতে ভোট ডাকাতি ও ব্যালট লুট করার অপকর্মের পরিণতি হবে এই ম্যান্ডেটহীন সরকারের জন্য বিবিধ অমঙ্গলের কারণ।

রিজভী বলেন, যে দল ভোটে বিজয়ী হয়, সাধারণত তাদের কর্মীরাই উৎসব, ভোজ ইত্যাদিতে মেতে থাকেন। কিন্তু আইনশৃঙ্খলা বাহিনী একটি রাজনৈতিক দলের তথাকথিত বিজয়ে উৎসব উদযাপন করে, এটা শুধু নজীরবিহীন ও হাস্যকরই নয়, হতবাক করা বিস্ময়ও বটে। এটি গণতন্ত্র ও নির্বাচন নিয়ে তামাশার বিকৃত প্রকাশ।

তিনি বলেন, সরকার তথাকথিত হিংসা ও মহাজালিয়াতির নির্বাচনের বিনিময়ে দেশের মানুষের নাগরিক স্বাধীনতা খর্ব করেছে। এখন সরকার দমননীতির উত্থান প্রবল থেকে প্রবলতর করছে।

‘হামলা-মামলা-লুটপাটের’ তথ্য সংগ্রহ করছে বিএনপি

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ‘হামলা-মামলা-লুটপাটের’ তথ্য সংগ্রহ করতে পৃথক তিনটি কমিটি গঠন করেছে বিএনপি। প্রত্যেক কমিটি আলাদা বিষয় নিয়ে মাঠে কাজ শুরু করছে।

১৮৩ আসনে ধানের শীষের প্রার্থীরা ৩০ ডিসেম্বরের সংসদ নির্বাচনে ‘অনিয়ম’ ও ‘ভোট কারচুপির’ তথ্য নিয়ে তৈরি প্রতিবেদন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জমা দিয়েছেন সংশ্লিষ্ট এলাকার প্রতিনিধিরা।  

একইসঙ্গে নির্বাচনের আগের রাতে এবং ভোটের দিন যেসব ভোট কেন্দ্রে ‘অনিয়ম’ ও ‘ভোট কারচুপি' হয়েছে তার ভিডিও এবং লিখিত বর্ণনাও রয়েছে প্রতিবেদনে।

এছাড়া, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন বাতিল করে অবিলম্বে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে পুনরায় নির্বাচনের দাবি জানিয়েছে বাম গণতান্ত্রিক জোট এবং ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ।#

পার্সটুডে/আবদুর রহমান খান/আশরাফুর রহমান/১২

খবরসহ আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত সব লেখা ফেসবুকে পেতে এখানে ক্লিক করুন এবং নোটিফিকেশনের জন্য লাইক দিন 

ট্যাগ

মন্তব্য