২০১৯-০৩-১৫ ১৮:৩১ বাংলাদেশ সময়

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দু'টি মসজিদে জুমার নামাজের সময় বন্দুকধারীদের গুলিতে তিন বাংলাদেশিসহ ৪৯ জন নিহত ও ৪৮ জন আহত হয়েছেন। নজিরবিহীন এ সন্ত্রাসী হামলাকে 'পরিকল্পিত' আখ্যা দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডের্ন। এ ঘটনায় গভীর শোক ও নিন্দা জানিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। হামলার পর নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীকে পাঠানো এক বার্তায় এ শোক ও নিন্দা জানান তিনি।

নিউজিল্যান্ডের স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, আজ (শুক্রবার) স্থানীয় সময় বেলা দেড়টার দিকে ক্রাইস্টচার্চের আল নূর মসজিদে জুমার নামাজ আদায়রত মুসলিমদের ওপর হামলা চালায় এক বন্দুকধারী। পরে কাছাকাছি শহরতলি লিনউডের মসজিদে হামলা চালানো হয়। হামলায় আল নূর মসজিদে ৪১ জন এবং লিনউড এলাকার অন্য মসজিদে ৮ জন নিহত হয়।

নিউজিল্যান্ডের বাংলাদেশ দূতাবাসের অনারারি কনসাল শফিকুর রহমান ভুইয়া জানিয়েছেন, নিহত বাংলাদেশিদের মধ্যে দুজন হলেন স্থানীয় লিঙ্কন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. আবদুস সামাদ ও তাঁর স্ত্রী। নিহত আরেকজন হলেন গৃহবধূ হোসনে আরা ফরিদ। এ ঘটনায় অন্তত পাঁচ বাংলাদেশি আহত হয়েছেন, যাদের মধ্যে দু’জনের অবস্থা গুরুতর।

নিউজিল্যান্ডে আতঙ্কিত বাংলাদেশের ক্রিকেট খেলোয়াড় ও কর্মকর্তারা

এদিকে, অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছেন নিউজিল্যান্ড সফরে থাকা বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা। অনুশীলন শেষে আল নূর মসজিদে নামাজ আদায় করতে যাচ্ছিলেন তারা। কিন্তু মসজিদে প্রবেশের আগেই বন্দুক হামলার খবর শুনে দ্রুত স্থান ত্যাগ করেন ক্রিকেটাররা। ঘটনার পর বাতিল করা হয়েছে বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার তৃতীয় ও শেষ টেস্ট ম্যাচটি। বাংলাদেশ দলকে দ্রুততম সময়ে দেশে ফিরিয়ে আনতে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

এ হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি বলেন, এ ধরণের ঘটনা অত্যন্ত নিন্দনীয়। বিশ্ববাসী এমন বর্বরোচিত ঘটনা প্রত্যাশা করে না।

ড. এ কে আব্দুল মোমেন

আর বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন জানিয়েছেন, নিউজিল্যান্ডে নিজস্ব দূতাবাস না থাকায় তথ্য সংগ্রহে ব্যাঘাত ঘটছে। এজন্য অস্ট্রেলিয়া দূতাবাসের মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহের চেষ্টা চলছে। নিউজিল্যান্ডের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ক্রিকেটারদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দিচ্ছে জানিয়ে, তাদের দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনার কথাও জানান তিনি।

অন্যদিকে, আকস্মিক হামলার ঘটনায় আতঙ্কে ছিলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। ঘটনার পর নিজেদের টুইটারে ভয়াবহ অভিজ্ঞতা শেয়ার করেন তারা। ক্রিকেটারদের নিরাপত্তা প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, এরপর যেখানেই দল যাক না কেন, মিনিমাম নিরাপত্তা নিশ্চিত করেই যেতে হবে। সেটা যারা দিতে পারবে তাদের দেশে আমরা খেলতে যেতে পারবো; এছাড়া বাংলাদেশের পক্ষে খেলতে যাওয়া সম্ভব নয়।#

পার্সটুডে/শামস মণ্ডল/আশরাফুর রহমান/১৫

খবরসহ আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত সব লেখা ফেসবুকে পেতে এখানে ক্লিক করুন এবং নোটিফিকেশনের জন্য লাইক দিন

ট্যাগ

মন্তব্য