২০১৯-০৪-১৩ ১২:২৩ বাংলাদেশ সময়
  • শাহাদাত হোসেন শামীম (বামে) ও জাবেদ হোসেনকে (ডানে)
    শাহাদাত হোসেন শামীম (বামে) ও জাবেদ হোসেনকে (ডানে)

ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসার ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যা মামলায় এজহারভূক্ত আরও দুই আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। গতকাল (শুক্রবার) রাতে ময়মনসিংহ ও ফেনী থেকে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়। 

গ্রেপ্তার দুই আসামি হলেন- সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদদৌলার ঘনিষ্ঠ ও মাদ্রাসা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন শামীম এবং ওই মাদ্রাসার ছাত্র জাবেদ হোসেন

পিবিআই ফেনীর অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার মো. মনিরুজ্জামান জানান, শুক্রবার দিবাগত রাত পৌনে ১টার দিকে ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা এলাকা থেকে শাহাদাত হোসেন শামীমকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সে রাফি হত্যায় দায়ের করা মামলার তিন নম্বর এজহারভুক্ত আসামি।

অপরদিকে নুসরাত হত্যা মামলার আরেক আসামি জাবেদ হোসেনকে শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ফেনী শহরের রামপুর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করেছে পিবিআই সদস্যরা

অধ্যক্ষ এস এম সিরাজ উদদৌলা ও নিহত নুসরাত জাহান রাফি

একইদিন মামলার অন্যতম আসামী নূর উদ্দিনকে শুক্রবার সকালে ময়মনসিংহের ভালুকা সিড স্টোর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করেছিল পিবিআই সদস্যরা। এ নিয়ে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। যাদের মধ্যে ৯ জনকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

এদিকে নুসরাত হত্যার অন্যতম আসামি আওয়ামী লীগ নেতা ও সৌনাগাজী পৌরসভার কাউন্সিলর মকসুদ আলমকে দল থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। শুক্রবার রাতে সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের প্যাডে সভাপতি-সম্পাদক স্বাক্ষরিত পত্রে এ তথ্য গণমাধ্যমকে জানানো হয়।  মাকসুদ আলম পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক (বর্তমানে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক) ছিলেন। বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকার ফকিরাপুল থেকে মাকসুদকে গ্রেপ্তার করে পিবিআই। শুক্রবার বিকালে তাকে ফেনীর আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়। আগামী ১৫ই এপ্রিল রিমান্ড শুনানির দিন ধার্য করে আদালত।#

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/১৩

 

ট্যাগ

মন্তব্য