• কিরণ বেদি
    কিরণ বেদি

ভারতের দিল্লির সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা কিরণ বেদিকে পণ্ডিচেরির লেফটেন্যান্ট গভর্নর করা হয়েছে। আজ (রোববার) প্রেসিডেন্ট প্রণব মুখোপাধ্যায় তাকে লেফটেন্যান্ট গভর্নর পদে নিযুক্ত করেন। আজ প্রেসিডেন্ট ভবন থেকে এক বিবৃতিতে তার নিয়োগের কথা জানানো হয়েছে।

নতুন দায়িত্ব পেয়ে বেশ খুশি হয়েছেন কিরণ বেদি। তিনি এ নিয়ে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলেন, ‘আমাকে এই দায়িত্ব দেয়ার জন্য আমি সরকারের কাছে কৃতজ্ঞ। শাসন পরিচালনার ক্ষেত্রে নিজেকে বিশ্বাসযোগ্য বলেই মনে করি। আশাকরি বিশ্বাস রাখতে পারব। পণ্ডিচেরি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল। স্বাধীনভাবে কাজ করার অনেক সুযোগ পাব।’

১৯৯৮- ৯৯ সালে দিল্লির তৎকালীন লেফটেন্যান্ট গভর্নর তেজিন্দর খান্নার সচিব পদে তিনি কাজ করেন। নতুন পদে সেই অভিজ্ঞতাও কাজে দেবে বলে তিনি মনে করছেন।

আম আদমি পার্টির নেতা কুমার বিশ্বাস কিরণ বেদিকে অভিনন্দন জানিয়েও কার্যত খানিকটা খোঁচা দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, যার হাতে আগে সূর্য ছিল, তিনি এখন জোনাকি জড়ো করে খুশি।

২০১৫ সালে তিনি দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে লড়েছিলেন। তাকে দলের পক্ষ থেকে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থীও করা হয়েছিল। যদিও কিরণ বেদিসহ গোটা বিজেপি দল শোচনীয়ভাবে আম আদমি পার্টির কাছে পরাজিত হওয়ায় তিনি আর মুখ্যমন্ত্রী হতে পারেননি।

কিরণ বেদি দেশের প্রথম মহিলা আইপিএস কর্মকর্তা ছিলেন। তিনি ১৯৭২ সালে পুলিশে যোগ দিয়ে একটানা ৩৫ বছর পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন।

সদ্য সমাপ্ত বিধানসভা নির্বাচনে পণ্ডিচেরিতে জয়ী হয়েছে কংগ্রেস-ডিএমকে জোট। ৩০ টি আসনের মধ্যে ১৭ টিতে জয়ী হয়ে কেন্দ্র শাসিত পণ্ডিচেরিতে ক্ষমতায় এসেছে তারা। এআইএডিএমকে ৪ টি আসন পেলেও বিজেপি সেখানে খাতা খুলতে পারেনি।

দিল্লিতে লেফটেন্যান্ট গভর্নর নাজিব জঙ্গের সঙ্গে আম আদমি পার্টির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের সম্পর্ক মোটেও ভালো নয়। বহু ক্ষেত্রে দুই প্রধানের মধ্যে অধিকারের সীমা নিয়ে বিবাদ লেগে রয়েছে। এক্ষেত্রে কেন্দ্র শাসিত পণ্ডিচেরিতে কংগ্রেস জোট ক্ষমতায় এলেও তাদের সঙ্গে সাবেক এই পুলিশ কর্মকর্তার সম্পর্ক কেমন দাঁড়ায় রাজনৈতিক মহলের নজর এখন সেদিকেই।

কংগ্রেস পরিচালিত সরকারের ওপর চাপ বাড়ানোর লক্ষ্যেই কিরণ বেদিকে কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে নিয়োগ করা হয়েছে বলে বিশ্লেষকরা মনে করছেন। #

পার্সটুডে/এমএএইচ/এআর/২২

২০১৬-০৫-২২ ২১:০৫ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য