• দার্জিলিংয়ে জনতার কারফিউয়ের ডাক দিলেন মোর্চা প্রধান বিমল গুরুং

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের দার্জিলিংয়ে পৃথক গোর্খাল্যান্ড রাজ্যের দাবিতে এবার জনতার কারফিউয়ের আহ্বান জানালেন গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা প্রধান বিমল গুরুং।

গতকাল মঙ্গলবার উত্তরকন্যায় পাহাড় সমস্যা নিয়ে রাজ্য সরকারের ডাকা বৈঠকের পর মোর্চা প্রধান বিমল গুরুং বলেন, বিনয় তামাং একাই বনধ ডেকেছিলেন। রাজ্য সরকারের সঙ্গে বৈঠকে আমি খুশি নই। ত্রিপাক্ষিক বৈঠক না হওয়া পর্যন্ত পাহাড়ে বনধ চলবে।’

তিনি দু’একদিনের মধ্যেই পাহাড়ে জনতার কারফিউ শুরু হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। গোর্খাল্যান্ডের জন্য ত্রিপাক্ষিক বৈঠকে আলোচনা শুরু হলে বনধ তোলার ব্যাপারে জনতাকে অনুরোধ করবেন বলেও তিনি জানিয়েছেন।  

অন্যদিকে, মোর্চা থেকে বহিষ্কৃত নেতা বিনয় তামাং বনধ ডাকার কথা স্বীকার করে বলেন, আমি পাহাড়বাসীকে বনধ তুলে দোকানপাট খোলার জন্য অনুরোধ করছি। ত্রিপাক্ষিক বৈঠকের পথ খুলছে।

এভাবে গুরুং ও তামাংয়ের পাল্টাপাল্টি পদক্ষেপ ও বিরোধের জেরে আসন্ন পূজা উৎসবের আগে পাহাড় স্বাভাবিক হবে কি না তা নিয়ে অনিশ্চয়তা সৃষ্টি হয়েছে।

এদিকে, মোর্চা নেতারা মানুষের আবেগ নিয়ে রাজনীতি করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সেখানকার সাধারণ মানুষ কঠোর হাতে মোর্চা আশ্রিত দুর্বৃত্তদের দমন করার আহ্বান জানিয়েছেন। বিমল গুরুংকে গ্রেফতার করা না হলে পাহাড়ে শান্তি ফিরবে না বলে স্থানীয় বাসিন্দারা মনে করছেন।

দার্জিলিংয়ে পৃথক গোর্খাল্যান্ড রাজ্যের দাবিতে সেখানে প্রায় তিন মাস ধরে বনধ-অবরোধ কর্মসূচি চালাচ্ছে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা। রাজ্য সরকার সেখানকার বিভিন্ন দলের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার চেষ্টা করছে।#

পার্সটুডে/বাবুল আখতার/১৩

 

২০১৭-০৯-১৩ ১৭:৫২ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য