ভারতের দিল্লির ঐতিহাসিক জামে মসজিদকে 'যমুনা দেবীর মন্দির' বলে দাবি করলেন বিজেপি নেতা বিনয় কাটিয়ার। তিনি আজ (বৃহস্পতিবার) গণমাধ্যমে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, মোঘল সম্রাটরা প্রায় ছয় হাজার স্থাপনা ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয়। দিল্লির জামে মসজিদ আসলে ছিল যমুনা দেবীর মন্দির, তাজমহল ছিল তেজো মহালয়া।

তার দাবি, কমপক্ষে সাড়ে ছয় হাজার এমন হিন্দু স্থাপনা রয়েছে। যদি রাম মন্দির নিয়ে নিষ্পত্তি না হয় তাহলে সব দাবি করা হবে।

তিনি বলেন, অযোধ্যায় কেবল হিন্দুদের দাবি থাকতে পারে, আর কারো নয়। অযোধ্যায় পুজো হচ্ছে, তা হতে থাকবে। ওই ভূমি রামের এবং রামেরই তা থাকবে।

বিনয় কাটিয়ার আরও বলেন, ‘আমরা কেবল তিন স্থানের দাবি জানিয়েছি। রামের জন্মস্থান, কৃষ্ণের জন্মস্থান এবং বিশ্বনাথ মন্দির। অন্যথায় জামে মসজিদও যমুনা মন্দির ছিল এবং তাজমহলও তেজোমহালয়া মন্দির ছিল। আমরা বিতর্ক বাড়াতে চাই না যদি মন্দির নির্মাণ হয় তাহলে বিতর্ক শেষ হয়ে যাবে।’

বিজেপি নেতা বিনয় কাটিয়ার

এসব লোক বিদ্বেষের রাজনীতি ছড়াতে চান: সাজিদ রশিদি

এদিকে, বিনয় কাটিয়ার ওই মন্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেছেন অল ইন্ডিয়া ইমাম ফেডারেশনের সভাপতি ইমাম সাজিদ রশিদি।

তিনি বলেন, ‘এটা ঠিক যে এসব লোক দেশে বিদ্বেষের রাজনীতি এবং  সন্ত্রাস ছড়াতে চান। তারা দেশকে হিন্দু রাষ্ট্রের দিকে নিয়ে যেতে চায় কিন্তু এই দেশ হিন্দু রাষ্ট্র হতে পারে না, কারণ এটি বহু সংস্কৃতির দেশ।’

অল ইন্ডিয়া ইমাম ফেডারেশনের সভাপতি ইমাম সাজিদ রশিদি

২০১৯ সালে রাম মন্দির নির্মাণ শুরু হবে: টি রাজা

অন্যদিকে, বাবরী মসজিদ-রাম মন্দির ইস্যুতে অন্ধ্র প্রদেশের বিজেপি বিধায়ক টি রাজা বলেছেন, সুপ্রিম কোর্টের রায় যদি হিন্দুদের পক্ষে না যায় তাহলেও ২০১৯ সালে রাম মন্দির নির্মাণ শুরু করে দেয়া হবে। ২০১৯ সালের পরে কাশী ও মথুরাতেও মন্দির নির্মাণ শুরু করা হবে বলেও তিনি বলেন।

পার্সটুডে/এমএএইচ/এআর/৭

২০১৭-১২-০৭ ১৮:৪৬ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য