• মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
    মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপি নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে হিসাব চেয়ে দেশে লুটেরাদের সরকার চলছে বলে মন্তব্য করেছেন।

তিনি আজ (মঙ্গলবার) মালদহে এক জনসমাবেশে ভাষণ দেয়ার সময় বিজেপি ও কেন্দ্রীয় সরকারের তীব্র সমালোচনা করেন।

মমতা বলেন, ‘বিজেপি এমন একটা রাজনৈতিক দল যারা নির্বাচন এলে হিন্দু-মুসলমানের মধ্যে ভাগাভাগি করে। ওরা জানতে চায় হিন্দু না মুসলমান। যেন হিন্দু ধর্মের ওরা জন্ম দিয়েছে! ওরা কোথায় ছিল, যখন রামকৃষ্ণ জন্মেছিলেন? টিকি ছিল? টিকি ছিল না। ওই দলটা জন্মেছে কবে? ১৯৮৪ সালে। ১৯৮৪ সালে আমি লোকসভার এমপি হয়ে গিয়েছিলাম।’

মমতা বলেন,  পশ্চিমবঙ্গে কোনো ভাগাভাগির রাজনীতি চলবে না। তিনি কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্দেশ্যে বলেন, হিসাব দাও। দিল্লি সরকারের প্রায় চার বছর হয়ে গেল। লোকের ব্যাংকের টাকা লুট হয়ে যাচ্ছে হিসাব দাও। ফিক্সড ডিপজিটের টাকা তুলে নিচ্ছ হিসাব দাও। পেট্রলের দাম কেন বাড়ছে হিসাব দাও। ডিজেলের দাম কেন বাড়ছে হিসাব দাও। মানুষকে কেন হত্যা করা হচ্ছে হিসাব দাও। হিসেব চাই- হিসাব দাও, নইলে গদি ছেড়ে দাও।’

মমতা বলেন, ‘বাংলার মাটি রবীন্দ্রনাথের মাটি নজরুলের মাটি, রামকৃষ্ণদেবের মাটি, চৈতন্য দেবের মাটি। বাংলার মাটি কখনো মাথানত করতে জানে না।’

তিনি বলেন, আধার কার্ডের নাম করে জালিয়াতি চলছে অনেক জায়গায়। মানুষের জীবন পর্যন্ত স্ক্যান করে তুলে নেয়া হচ্ছে। বাংলা একমাত্র জায়গা যারা ভয় পায় না, লড়াই করে। বাংলার মাটি  ভয় পায় না, বাংলার মাটি রুখে দাঁড়ায়। বাংলার মাটি কাপুরুষ নয়, বাংলার মানুষ প্রতিবাদ করতে জানে।

’তিনি সিপিএম, কংগ্রেস ও বিজেপিকে দিল্লির অবিচারের বিরুদ্ধে রুখে না দাঁড়ানোয় তাদের তীব্র কটাক্ষ করেছেন। #

পার্সটুডে/এমএএইচ/এমআরএইচ/এআর/২০

 

২০১৮-০২-২০ ১৯:৩১ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য