• দিল্লিতে ঈদের নামাজ
    দিল্লিতে ঈদের নামাজ

রাজধানী নয়াদিল্লিসহ গোটা ভারতে বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত হয়েছে। আজ (বুধবার) সকালে দিল্লির ঐতিহাসিক জামে মসজিদে প্রচুরসংখ্যক মুসল্লি ঈদের নামাজে অংশ নেন।

পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কোলকাতায় সবচেয়ে বড় জামাত অনুষ্ঠিত হয় ঐতিহাসিক রেড রোডে। নামাজ শেষে মুসুল্লিরা পরস্পরকে আলিঙ্গন করে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

প্রেসিডেন্ট রামনাথ কোবিন্দ, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়, বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার, উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগি আদিত্যনাথসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিরা ঈদ উপলক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।

ভারতের বিজেপিশাসিত উত্তর প্রদেশের ঐতিহাসিক আইশবাগ ঈদগাহ ময়দানে উপস্থিত হয়ে গভর্নর রাম নাইক সবাইকে শুভেচ্ছা জানান। এখানে মাওলানা খালিদ রশিদ ফিরিঙ্গি মহলি কেরালার ভয়াবহ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সাহায্যের জন্য আবেদন জানান।

কোলকাতায় ঈদের নামাজ

গভর্নর রাম নাইক মাওলানা খালিদ রশিদের ওই আহ্বানের প্রশংসা করে মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দান করার আহ্বান জানান। উত্তর প্রদেশের রাজধানী লক্ষনৌসহ রাজ্যের বিভিন্ন ঈদগাহ, খানকাহ ও মসজিদে ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হয়।

হিমাচল প্রদেশে ঈদের নামাজ শেষে কেরালায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য বিশেষ প্রার্থনা করা হয়।

উত্তর প্রদেশের ঐতিহাসিক আইশবাগ ঈদগাহ ময়দানে গভর্নর রাম নাইক

আজ বিহারের রাজধানী পাটনাসহ বিভিন্নস্থানে ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। পাটনার ঐতিহাসিক গান্ধী ময়দানে আজ হাজার হাজার মানুষ ঈদের জামাতে শামিল হন।

অন্যদিকে, কাশ্মিরে ঈদের নামাজ শেষে সেখানে প্রতিবাদী জনতা ও নিরাপত্তা বাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। ওই ঘটনায় উভয়পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। শ্রীনগরে আজ নামাজ শেষ হওয়ার পরেই প্রতিবাদী তরুণরা সড়কে নেমে ব্যাপক বিক্ষোভ প্রদর্শনসহ নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের লক্ষ্য করে পাথর নিক্ষেপ করলে সংঘর্ষ শুরু হয়। নিরাপত্তা বাহিনী কাঁদানে গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি সামাল দেয়ার চেষ্টা করে। আজ অনন্তনাগ, সোপোর ও অন্যত্র প্রতিবাদ বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ হয়।#

পার্সটুডে/এমএএইচ/এআর/২২   

খবরসহ আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত সব লেখা ফেসবুকে পেতে এখানে ক্লিক করুন এবং নোটিফিকেশনের জন্য লাইক দিন 

ট্যাগ

২০১৮-০৮-২২ ২০:১৭ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য