ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং বলেছেন, দেশে সংখ্যালঘু, দলিত ও নারীরা নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে বাস করছে। কেন্দ্রীয় সরকার ওইসকল মূল্যবোধকে ধীরে ধীরে শেষ করছে যা যেকোনো গণতান্ত্রিক দলের উচিত রক্ষা করা।

গতকাল (শুক্রবার) ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিতে কংগ্রেস নেতা কপিল সিব্বলের লেখা ‘শেডস অব ট্রুথ-আ জার্নি ডিরেলড’ বইপ্রকাশ অনুষ্ঠানে দেয়া বক্তব্যে তিনি ওই মন্তব্য করেন।

প্রধান বিরোধীদল কংগ্রেসের এই সিনিয়র নেতা আরও বলেন, ‘দেশের যুবসম্প্রদায় অধীর আগ্রহে দু’কোটি চাকরির জন্য অপেক্ষা করছে। কিন্তু গত চার বছরে কর্মসংস্থান তো বাড়েইনি, বরং কমেছে। মোদি সরকার দেশের বেকারত্ব দূর করার প্রতিশ্রুতি পূরণ করতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে। ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’ ও ‘স্ট্যান্ড আপ ইন্ডিয়া’ প্রকল্পের এখনো কোনো সম্পূর্ণ ফল নেই। এখনো ছোট ও  মাঝারি শিল্প সেভাবে লাভের মুখ দেখতে পায় না।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের সীমান্ত অসুরক্ষিত। প্রতিবেশিদের সঙ্গে সম্পর্ক ভালো নয়। দেশে একটি বিকল্প ধারণা  প্রয়োজন।’

এ প্রসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের ‘উদার আকাশ’ পত্রিকার সম্পাদক ফারুক আহমেদ আজ (শনিবার) রেডিও তেহরানকে বলেন, ‘সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং সংখ্যালঘু, দলিত ও নারীরা নিরাপত্তাহীনতায় বাস করছেন বলে যে মন্তব্য করেছেন তা অত্যন্ত  যথার্থ। কেন্দ্রীয় সরকার বছরে দু’কোটি বেকারের চাকরি, পেট্রোপণ্যের দাম বাড়বে না বলে যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল তা রক্ষা করতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে। বর্তমান সরকারের আমলে পেট্রোপণ্যের দাম সর্বকালীন রেকর্ড অতিক্রম করেছে। সাধারণ মানুষের কোনো নিরাপত্তা নেই, গোটা দেশে কার্যত অরাজকতা সৃষ্টি হয়েছে।’

‘আগামী ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে সাধারণ মানুষ এই সরকারকে উচিত জবাব দেবে’ বলেও ফারুক আহমেদ মন্তব্য করেন।#  

পার্সটুডে/এমএএইচ/এআর/৮

খবরসহ আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত সব লেখা ফেসবুকে পেতে এখানে ক্লিক করুন এবং নোটিফিকেশনের জন্য লাইক দিন

ট্যাগ

২০১৮-০৯-০৮ ১৯:০০ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য