• ভারতের বিপক্ষে টাই করেই খুশি আফগানরা
    ভারতের বিপক্ষে টাই করেই খুশি আফগানরা

ভারত ও আফগানিস্তানের মধ্যকার এশিয়া কাপের সুপারের ফোরের পঞ্চম ম্যাচটি টাই হয়েছে। ম্যাচের পরতে পরতে উত্তেজনা ছড়ালেও কোনো দলই জিততে পারেনি। তবে ভারতের মতো শক্তিশালী দলকে আটকে দিয়ে উল্লাসে মেতে ওঠে আফগানরা।

মঙ্গলবার দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে মোহাম্মদ শাহজাদের ১২৪ রানের ওপর ভর করে আফগানিস্তান নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে করে ২৫২ রান। ২৫৩ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ৪৯.৫ ওভারে অলআউট হওয়ার আগে ভারতও ২৫২ করতে সক্ষম হয়। তাই টাইয়ে শেষ হয় ম্যাচটি।

শেষ ওভারে দরকার ছিল মাত্র ৭। দ্বিতীয় বলে ৪ হাঁকিয়ে সেই ব্যবধান ৩-এ নিয়ে এসেছিলেন রবীন্দ্র জাদেজা। কিন্তু তিনিই হয়ে গেলেন খলনায়ক। জয়ের জন্য শেষ ২ বলে প্রয়োজন মাত্র ১ রান। সেখানে রশিদ খানের করা পঞ্চম বলে নাজিবুল্লাহ জাদরানের হাতে ক্যাচ তুলে দিলেন তিনি। এতে দু’দলের স্কোর সমান হয়ে যায়।

উদ্বোধনী জুটিতে ১১০ রান যোগ করেন ভারতের রাহুল-রাইডু

আফগানিস্তানের দেয়া ২৫৩ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ১১০ রান যোগ করে শক্ত ভিত গড়েন রাহুল-রাইডু। ৪৩ বলে হাফসেঞ্চুরি করার পর মোহাম্মদ নবীর বলে আউট হয়ে যান রাইডু। তার আগে ৪৯ বলে ৪ বাউন্ডারি ও ৪ ছক্কায় করেন ৫৭ রান।

পার্টনার হারিয়ে বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে পারেননি লোকেশ। সাজঘরের পথ ধরেন তিনিও। তাকে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলে ফেরান রশিদ খান। ফেরার আগে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ফিফটি তুলে নেন রাহুল। ৬৬ বলে ৫ চার ও ১ ছক্কায় ৬০ রান করে ফেরেন তিনি। এরপর দিনেশ কার্তিকের ৪৪ রানের ইনিংসটি বাদে বাকিরা সবাই ছিলেন নিষ্প্রভ। অধিনায়ক ধোনি ও মানিশ পান্ডে দু’জনেই ফিরেছেন ৮ রান করে। কেদার যাদব ১৯ এবং কুলদীপ যাদব করেছেন ৯ রান। সিদ্ধার্থ কউল ও খলিল ফিরেছেন ১ রান সংগ্রহে।

লোয়ার অর্ডারে রবীন্দ্র জাদেজা একাই লড়াই করে আশা জাগলেও জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারেনি ভারত। শেষ ওভারে রশিদ খানের ৫ম বলে জাদেজা নজিবউল্লাহ জাদরানের হাতে ক্যাচ তুলে দিলে ২৫২ রানে অল আউট হয় ভারত।

আফগানদের পক্ষে দুটি করে উইকেট নিয়েছেন মোহাম্মাদ নবী, রশীদ খান ও আফতাব আলম।

সেঞ্চুরি করে ম্যান অব দ্য ম্যাচ হন মোহাম্মদ শাহজাদ

এর আগে টস জিতে আগে ব্যাটিং নেন আফগানিস্তান অধিনায়ক আসগার আফগান। তার সিদ্ধান্তকে যৌক্তিক প্রমাণ করেন বিস্ফোরক ওপেনার মোহাম্মদ শাহজাদ। শুরু থেকেই ভারতীয় বোলারদের ওপর চড়াও হয়ে খেলেন তিনি। এই উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান ১১৬ বলে ১২৪ রানের চমৎকার একটি ইনিংস খেলেন যাতে ছিল ১১টি চার ও সাতটি ছক্কার মার।

মাঝখানে দ্রুত পাঁচ উইকেট হারিয়ে আফগানিস্তান কিছুটা বিপদে পড়লেও একপাশ আগলে রাখেন শেহজাদ। তাঁকে যোগ্য সাপোর্ট দেন সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ নবী। তিনি ৫৬ বলে ৬৪ রানের দারুণ একটি ইনিংস খেলেন। আর নাজিবুল্লাহ জাদরান ২০ বলে ২০ রান করেন। এছাড়া, গুলবদিন নাইব ১৫ এবং রশিদ খানের ১২ রান উল্লেখযোগ্য।

রবিদ্র জাদেজা ৪৬ রানে তিনটি এবং কুলদীপ যাদব ৩৮ রানে দুই উইকেট নেন। এ ছাড়া খলিল আহমেদ, দিপদ চাহার ও কেদার যাদব একটি করে উইকেট পান।

সুপার ফোরে পরপর দুই ম্যাচ হেরে ইতোমধ্যে শেষ হয়ে গেছে আফগানিস্তানের ফাইনালে খেলার স্বপ্ন। এই ম্যাচটি নিয়ম রক্ষার হলেও শক্তিশালী ভারতের বিপক্ষে টাইকে 'জয়ের সমান' মনে করছেন আফগানরা।#

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/২৬

ট্যাগ

২০১৮-০৯-২৬ ০২:৫৮ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য