২০১৯-০১-১২ ১২:০৪ বাংলাদেশ সময়
  • নিহত সেনার কফিন বহন করছেন সহকর্মীরা (ফাইল ফটো)
    নিহত সেনার কফিন বহন করছেন সহকর্মীরা (ফাইল ফটো)

জম্মু-কাশ্মিরে ইমপ্রোভাইসড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস (আইইডি) বিস্ফোরণে সেনাবাহিনীর এক মেজরসহ দুই জওয়ান নিহত ও অন্য এক সেনাসদস্য আহত হয়েছেন। এছাড়া পাকবাহিনীর গুলিবর্ষণে সেনাবাহিনীর এক কুলি নিহত হয়েছেন। 

গতকাল (শুক্রবার) নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর রাজৌরি জেলার নৌশেরা এলাকায় আইইডি বিস্ফোরণে এক কর্মকর্তাসহ দুই জওয়ান নিহত ও অন্য এক সেনাসদস্য আহত হন।  

কর্মকর্তারা বলছেন, সন্দেহভাজন সন্ত্রাসীরা রাজৌরি জেলার লাম সেক্টরে সীমান্তে টহলদারি চালানো সেনাদের টার্গেট করে নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর সড়কে আইইডি রেখে দিয়েছিল। বিস্ফোরণে সেনাবাহিনীর এক জেসিও-সহ দুই জওয়ান আহত হলে তাঁদেরকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসা চলাকালীন দুই জওয়ান মারা যান।  

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট কর্নেল দেবেন্দর আনন্দ আইইডি বিস্ফোরণের কথা নিশ্চিত করেছেন।    

গণমাধ্যমের একটি সূত্র বলছে নিহতরা হলেন- মেজর এস জি নাইয়ার এবং রাইফেলম্যান জিয়ান গুরুং। এদিন বিকেল সাড়ে চারটা ও সন্ধ্যা ছয়টা নাগাদ দুটি বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।   

একইদিনে অন্য এক ঘটনায় রাজৌরি জেলার সুন্দেরবানী সেক্টরে পাক বাহিনীর গুলিবর্ষণে হেমরাজ নামে সেনাবাহিনীর এক কুলি নিহত হয়েছেন।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট কর্নেল দেবেন্দর আনন্দ বলেন, আহত কুলিকে দ্রুত চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হলেও গুলিবিদ্ধ হয়ে তিনি মারা যান। তাঁর পরিবারকে সবধরনের সাহায্য করা হবে বলেও শ্রী আনন্দ জানান।      

এদিকে, (শুক্রবার) অজ্ঞাত গেরিলারা শ্রীনগরের লালচক এলাকায় আধাসামরিক বাহিনী সিআরপিএফের একটি বাঙ্কারে গ্রেনেড হামলা চালায়। হামলাকারীদের চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে। ওই হামলার ঘটনায় কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি বলে সিআরপিএফের জনসংযোগ কর্মকর্তা সঞ্জয় শর্মা গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন।    

সেনাবাহিনীর জওয়ানদের আইইডি বিস্ফোরণ ও পাকিস্তানি বর্ডার অ্যাকশন টিমের আক্রমণের বিষয়ে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে।#

পার্সটুডে/এমএএইচ/এআর/১২  

খবরসহ আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত সব লেখা ফেসবুকে পেতে এখানে ক্লিক করুন এবং নোটিফিকেশনের জন্য লাইক দিন 

ট্যাগ

মন্তব্য