২০১৯-০২-১২ ২০:৪৭ বাংলাদেশ সময়
  • সংসদে তুমুল হট্টগোলের জেরে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পেশ হল না: আমসুর প্রতিক্রিয়া

ভারতীয় সংসদের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় বিরোধীদের তুমুল হট্টগোলের ফলে বহুলালোচিত নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পেশ হয়নি। আজ (মঙ্গলবার) সরকারপক্ষ থেকে ওই বিল রাজ্যসভায় পেশ করার কথা ছিল।

সমাজবাদী পার্টির প্রধান অখিলেশ যাদবকে লক্ষনৌ বিমানবন্দরে প্রয়াগরাজে যেতে বাধা দেয়ার অভিযোগে আজ রাজ্যসভায় সমাজবাদী এমপিরা তুমুল বিক্ষোভ প্রদর্শন করলে অধিবেশনের কাজকর্ম আগামীকাল (বুধবার) বেলা ১১ টা পর্যন্ত মুলতুবি হয়ে যায়।

আজ সংসদে বিভিন্ন ইস্যুতে তৃণমূল ও অন্য বিরোধী সদস্যরা স্লোগানসহ বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। দু’দফায় অধিবেশনের কাজ স্থগিত করতে হয়। পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে আগামীকাল পর্যন্ত অধিবেশনের কাজ মুলতুবি করে দিতে বাধ্য হন রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান হরিবংশ নারায়ণ সিং।       

গত ৮ জানুয়ারি নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল লোকসভায় পাস হওয়ার পরে পূর্বোত্তর ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে এর তীব্র বিরোধিতা করা হচ্ছে।

মণিপুরে বিক্ষোভ ও সহিংসতার জেরে গতকাল সোমবার রাত থেকে ইম্ফলের বিভিন্ন এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করাসহ অনির্দিষ্টকালের জন্য মোবাইল ইন্টারনেট পরিসেবা স্থগিত করা হয়েছে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীসহ মন্ত্রী ও বিধায়কদের নিরাপত্তা বৃদ্ধি করা হয়েছে। পুলিশ লোকজনকে বাড়ির বাইরে বেরোতে নিষেধ করেছে। গোলযোগের আশঙ্কায় সেখানকার স্কুল, কলেজ, বাজারঘাট ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়েছে। গত রোববার ইম্ফলে নাগরিকত্ব বিলের প্রতিবাদ বিক্ষোভকে ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করলে ৬ নারী প্রতিবাদকারী আহত হন। 

সোমবার অরুণাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী পেমা খাণ্ডু ও মণিপুরের মুখ্যমন্ত্রী এন বীরেন সিং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাত করে রাজ্যসভায় নাগরিকত্ব বিল পাস না করানোর আবেদন জানান। রাজনাথ সিং তাঁদের আশ্বাস দিয়েছেন এরফলে উত্তর-পূর্বের কোনো বাসিন্দার অধিকার খর্ব হবে না। যদিও উত্তর-পূর্বের রাজ্য অসম, মিজোরাম, নাগাল্যান্ড, সিকিম, মণিপুরেও বিভিন্ন দল ও সামাজিক সংস্থা নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে সোচ্চার হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে অল অসম মাইনরিটি স্টুডেন্টস ইউনিয়নের (আমসু)উপদেষ্টা ও অসমের সংখ্যালঘু সংগঠন সমূহের সমন্বয় সমিতির মুখ্য আহ্বায়ক আইনজীবী আজিজুর রহমান আজ (মঙ্গলবার) রেডিও তেহরানকে বলেন, ‘অসম এবং ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্যে জনসাধারণ নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল, ২০১৬-এর বিরোধিতা করছেন। খুব জোরালোভাবে এর বিরোধিতা করা হচ্ছে। কোনো মূল্যের বিনিময়ে আমাদের অসম এবং উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্য যেতে পারে না। কারণ, ভারতের সংবিধানে ধর্মনিরপেক্ষ চরিত্র তা  ওই বিলের মধ্যে পরিস্ফুট হয়নি। বরং ওই বিলে  ধর্মনিরপেক্ষ চরিত্র অগ্রাহ্য করা হয়েছে। দ্বিতীয়ত, অসম এবং উত্তর-পূর্বাঞ্চলে বিভিন্ন জাতি, ধর্ম, জনগোষ্ঠীর মধ্যে ওই বিলের কারণে ভুল বুঝাবুঝির পূর্ণ সম্ভাবনা আছে। সেজন্য অসমসহ উত্তর-পূর্বাঞ্চলের প্রত্যেক জনগোষ্ঠী এর বিরোধিতা করছেন। আমরাও দাবি জানাচ্ছি যে, ওই বিল যাতে কোনোভাবেই পাস না হয়।’  

আজিজুর রহমান

আজিজুর রহমান বলেন, ‘আমাদের অবস্থান এব্যাপারে খুব স্পষ্ট যে, বিজেপি সরকার যেন কোনোভাবেই এই বিল নিয়ে রাজনীতি না করে। আজকে বিলটি রাজ্যসভায় উত্থাপন করার কথা থাকলেও যেকোনো কারণেই হোক আজ বিলটি পেশ হয়নি। এতে আমরা খুশি। আগামীকালও (বুধবার) যাতে বিলটি পেশ না হতে পারে সেজন্য কংগ্রেস সমন্বিত অন্যান্য বিরোধী দলের উদ্দেশ্যে আমাদের আহ্বান, অসম এবং উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্যের আবেগের প্রতি সম্মান জানিয়ে তাঁরা সকলেই যেন রাজ্যসভায় ওই বিলের বিরোধিতা করেন এবং কোনোভাবেই তা পাস না হয়। আমরা সমান্তরালভাবে বলতে চাই যে, বিজেপি দল যদি জোরকরে ওই বিল পাস করার চেষ্টা করে তাহলে আগামী নির্বাচনে অসম এবং উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্যে বিজেপিকে মানুষজন উচিত শিক্ষা দেবে।’#  

পার্সটুডে/এমএএইচ/এমআরএইচ/১২    

 

 

ট্যাগ

মন্তব্য