২০১৯-০২-১৫ ১২:৪১ বাংলাদেশ সময়
  • কাশ্মিরে সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা বিশ্বজুড়ে, পাকিস্তানকে দায়ী করল ভারত

ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মিরে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলায় আধাসামরিক বাহিনী সিআরপিএফ জওয়ানদের হতাহতের ঘটনায় জাতিসংঘ এবং বিভিন্ন দেশ তীব্র নিন্দা জানিয়েছে। হামলার ঘটনায় উদ্ভূত পরিস্থিতিতে আজ (শুক্রবার) জরুরি বৈঠকে বসে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার নিরাপত্তা বিষয়ক কমিটি।

ওই বৈঠক শেষে হামলাকারীদের উদ্দেশে চরম হুঁশিয়ারি দিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, ‘যারা ওই হামলা চালিয়েছে, তাদের বড় মূল্য দিতে হবে। শাস্তি পেতেই হবে। কোনও ভাবেই ছাড় দেওয়া হবে না ওদের।’ পাটনায় দলীয় নির্ধারিত সভা বাতিল করে আজই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং কাশ্মির সফরে গিয়ে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেছেন।

একইসঙ্গে আজ ভারতের পক্ষ থেকে পাকিস্তানকে ‘সবচেয়ে সুবিধাপ্রাপ্ত দেশ’ –এর মর্যাদা বাতিল করা হয়েছে। অন্যদিকে, ভারতের পররাষ্ট্র সচিবের পক্ষ থেকে পাকিস্তানের হাইকমিশনারকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করে সন্ত্রাসী হামলার বিষয়ে তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়েছে।

গতকাল (বৃহস্পতিবার) বিকেলে কাশ্মিরের পুলওয়ামাতে সামরিক কনভয়ে আত্মঘাতী গাড়িবোমা হামলায় কমপক্ষে ৪২ জন জওয়ান নিহত ও ৩৮ জন আহত হয়েছে। জৈশ-ই-মুহাম্মাদ গোষ্ঠী ওই হামলার দায় স্বীকার করেছে।

কর্মকর্তারা বলছেন, চারচাকার স্করপিও গাড়িতে কমপক্ষে ৩৫০ কেজি বিস্ফোরক ছিল। ভয়াবহ ওই বিস্ফোরণের তীব্রতা এত বেশি ছিল যে ১০/১২ কিলোমিটার দূর থেকেও মানুষজন শব্দ পেয়েছেন।

জাতিসঙ্ঘের পক্ষ থেকে ওই সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা করে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা ও আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করা হয়েছে। এছাড়া আমেরিকা, রাশিয়া, ফ্রান্সসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ওই হামলার নিন্দা করেছে। ভয়াবহ ওই হামলার ঘটনার ঘটনার নিন্দা করে ভারতের প্রতিবেশি বিভিন্ন দেশ ভারতের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেছে। ভারতের পাশে থেকে বাংলাদেশ, ভুটান, শ্রীলঙ্কা, মালদ্বীপসহ বিভিন্ন দেশ সন্ত্রাসবাদের বিপদ মোকাবিলার সঙ্কল্প ব্যক্ত করেছে।

কাশ্মিরের পুলওয়ামাতে সামরিক কনভয়ে আত্মঘাতী গাড়িবোমা হামলা

ভারতের প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী, বিরোধীদলের নেতারা ওই হামলার তীব্র নিন্দা করেছেন।

জম্মু কাশ্মিরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও পিডিপি প্রধান মেহবুবা মুফতি বলেছেন,  ‘এই বীভৎস আক্রমণের নিন্দার ভাষা নেই। আরও কত প্রাণ গেলে থামবে এই পাগলামি?’

ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ও জম্মু-কাশ্মিরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ বলেছেন, ‘আমি তীব্রতম ভাষায় এই ঘটনার নিন্দা জানাচ্ছি।’

জম্মু-কাশ্মিরের গভর্নর সত্যপাল মালিক বলেছেন, ‘জম্মু কাশ্মিরে বিভিন্ন জঙ্গিগোষ্ঠী তাদের উপস্থিতি জানান দিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। আপাতদৃষ্টিতে মনে হচ্ছে, ওই হামলার পিছনে সীমান্তের ওপারের হাত রয়েছে, যেহেতু জৈশ-ই-মুহাম্মদ এর দায় স্বীকার করেছে।’

এদিকে, ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, জৈশ-ই-মুহাম্মদকে পাকিস্তানের মাটি থেকে কাজকর্ম চালাতে দিচ্ছে সে দেশের সরকার।

যদিও ঘটনাটিকে ‘গভীর উদ্বেগের বিষয়’ বলে অভিহিত করে পাকিস্তান সরকারের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘কোনো তদন্ত ছাড়াই ভারত সরকার এবং ভারতীয় গণমাধ্যম যেভাবে পুলওয়ামার ঘটনার সঙ্গে পাকিস্তানের নাম জড়ানোর চেষ্টা করছে, আমরা দৃঢ়ভাবে সেই অভিযোগ অস্বীকার করছি।’

তারা সব সময়েই কাশ্মির উপত্যকায় সব ধরণের সহিংসতার নিন্দা করে আসছে বলেও পাকিস্তানের পক্ষ থেকে মন্তব্য করা হয়েছে।#

পার্সটুডে/এমএএইচ/এআর/১৫

খবরসহ আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত সব লেখা ফেসবুকে পেতে এখানে ক্লিক করুন এবং নোটিফিকেশনের জন্য লাইক দিন 

ট্যাগ

মন্তব্য