২০১৯-০২-১৬ ১৪:৫৬ বাংলাদেশ সময়
  • সিআরপিএফ জওয়ানদের কফিন
    সিআরপিএফ জওয়ানদের কফিন

জম্মু-কাশ্মিরে সন্ত্রাসী হামলায় আধাসামরিক বাহিনীর জওয়ানদের হতাহতের ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন ভারতের মুসলিম নেতারা। পুলওয়ামা জেলার আওয়ান্তিপুরা এলাকায় বৃহস্পতিবারের ওই হামলায় সিআরপিএফের ৪৪ জওয়ান নিহত হন।

জমিয়তে উলেমায়ে হিন্দের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মাহমুদ মাদানী বলেছেন, ‘এটা সন্ত্রাসী, অমানবিক, ঘৃণ্য ও কাপুরুষের মতো কাজ হয়েছে যা কখনই জিহাদ হতে পারে না। ভারতের সমস্ত ন্যায়প্রিয় নাগরিক এই ভয়ানক ঘটনায় নিহতদের প্রতি অত্যন্ত দুঃখ, শ্রদ্ধা ও সন্ত্রাসীদের প্রতি অত্যন্ত ঘৃণা প্রকাশ করছে। আমরা সকলেই মৃত এবং শোকার্ত পরিবারগুলোর সঙ্গে কোন ভেদাভেদ ছাড়াই কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে দাঁড়িয়ে আছি।’

মাওলানা মাহমুদ মাদানী

তিনি বলেন, বলেন, ‘এই সন্ত্রাসী কাজে কাশ্মিরে শান্তি স্থাপনকে আরও সঙ্কটপূর্ণ করে তুলল। কিন্তু আমাদের কখনই হতাশ হলে চলবে না। বরং শান্তি স্থাপন ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াই প্রতিটি স্তরে পূর্ণ শক্তির সঙ্গে অব্যাহত রাখতে হবে।’

এ প্রসঙ্গে জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের পশ্চিমবঙ্গের সভাপতি ও রাজ্যের মন্ত্রী মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী আজ (শনিবার) রেডিও তেহরানকে বলেন, ‘এটা খুব নিন্দনীয় কাজ। ভারতের সকলের জন্য, মানবিকতার জন্য ইসলামের জন্যসহ সব ক্ষেত্রেই এটা নিন্দনীয় কাজ। আমরা আইনের শাসন বরাবর চেয়েছি। এখনও আইনের শাসন চাইব। কাশ্মিরিদের আমরা পৃথক ভাবি না, ওরা ভারতীয়। ভারতের অন্যান্য রাজ্যের মানুষ যেমন ভারতবাসী ওরাও তেমন ভারতবাসী বলে আমরা বিশ্বাস করি। সেই সূত্রে ওদের সঙ্গে আপনজনের মতো ব্যবহার করে, সাধারণ মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করলে পরিস্থিতি আরও ভালো হবে। কে বা  কারা ওই ঘটনার জন্য দায়ী তা আমরা বলতে পারব না। যারা ওই ঘটনা ঘটিয়েছে তা খুব নিন্দনীয়। যেসব পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন, তাদের আপনজনকে হারিয়েছেন, তাদের প্রতি আমাদের সমবেদনা জানাচ্ছি। আমরা খুব দুঃখিত ও ব্যথিত।’  

মাওলানা সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী

‘সারা বাংলা সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশন’-এর সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ কামরুজ্জামান আজ রেডিও তেহরানকে বলেন, ‘জম্মু-কাশ্মিরের পুলওয়ামায় ভারতীয় জওয়ানদের উপরে যে হামলা হয়েছে তা অত্যন্ত নিন্দনীয়। আমরা কঠোর ভাষায় এর নিন্দা জানাচ্ছি। এ ধরণের হামলা যাতে ভারতকে দুর্বল করতে না পারে সেজন্য দেশের সমস্ত মানুষকে সেনাবাহিনীর পাশে দাঁড়ানো দরকার। ওই ঘটনার পরে তিন দিনের জাতীয় শোক পালন করা উচিত ছিল। কিন্তু দুর্ভাগ্যের বিষয় যে আমাদের খোদ প্রধানমন্ত্রী একদিনের জন্যও শোক পালন না করে তিনি হাসি মুখে বন্দে ভারত রেলের যে উদ্বোধন করেছেন তা দুর্ভাগ্যজনক। প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে দেশবাসী এটা আশা করে না, আমরা আশা করি না। আগামীদিনে যাতে দেশে এ ধরণের কোনও জঙ্গি হামলা না ঘটে সেজন্য আমাদের সকলকে সতর্ক থাকতে হবে। এবং যারা এ ধরণের আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে সরকারকে কড়া ব্যবস্থা নেয়ার আবেদন জানাব।’

মুহাম্মদ কামরুজ্জামান

কাশ্মিরে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা করে জামায়াতে ইসলামীর সর্বভারতীয় সভাপতি মাওলানা জালালউদ্দিন উমরী, জামিয়তে আহলে হাদিসের আমীর মাওলানা আসগার আলী সালাফি, মাওলানা মুহাম্মদ রহমান মাদানী, অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ডের সদস্য কামাল ফারুকীসহ অন্য মুসলিম নেতৃবৃন্দ কাশ্মিরে সন্ত্রাসী হামলার তীব্র নিন্দা করে এ ধরণের হামলা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয় বলে মন্তব্য করেছেন।#

পার্সটুডে/এমএএইচ/এআর/১৬

খবরসহ আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত সব লেখা ফেসবুকে পেতে এখানে ক্লিক করুন এবং নোটিফিকেশনের জন্য লাইক দিন 

ট্যাগ

মন্তব্য