• ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি
    ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানসহ বিশ্বের কোটি কোটি মানুষ আজ নওরোজ বা ফারসি নববর্ষ ১৩৯৬ সালের প্রথম দিন উদযাপন করছে। ইরানে প্রায় ১৫ দিন ধরে চলবে ঐতিহ্যবাহী এ উৎসব। নওরোজ উদযাপনের কারণে থেমে গেছে রাজধানী তেহরানের সব ব্যস্ততা। জনবহুল তেহরান শহর এখন একেবারেই ফাঁকা।

নতুন বছর শুরুর প্রাক্কালে ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ীকে টেলিফোন করে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি।

ইরানের সরকারি বার্তা সংস্থা ইরনা জানিয়েছে, টেলিফোন আলাপে প্রেসিডেন্ট রুহানি নতুন ফার্সি বছরে সর্বোচ্চ নেতার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করেছেন। এ সময় আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী ইরানের সরকার ও জনগণকে নওরোজের শুভেচ্ছা জানান এবং সবার সাফল্য ও অগ্রগতি কামনা করেন।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী

সর্বোচ্চ নেতার পাশাপাশি ইরানের প্রেসিডেন্ট প্রতিবেশি দেশগুলোর সরকার ও রাষ্ট্র প্রধানদেরকে নওরোজের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। ড. রুহানি যেসব দেশের সরকারের কাছে শুভেচ্ছা বার্তা পাঠিয়েছেন সেসব দেশ হচ্ছে- আজারবাইজান, তুর্কমেনিস্তান, আফগানিস্তান, পাকিস্তান, তাজিকিস্তান, কিরগিজস্তান, কাজাখস্তান, তুরস্ক, উজবেকিস্তান, আর্মেনিয়া ও ভারত।

শুভেচ্ছা বার্তায় তিনি প্রতিবেশি দেশগুলোর ঐক্য ও সমৃদ্ধি কামনা করেন। এছাড়া, প্রেসিডেন্ট রুহানি মোবাইলে এসএসএম করে ইরানি জনগণকে ফার্সি নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

প্রতি বছরের ন্যায় এবারও আফগানিস্তান, তাজিকিস্তান, আজারবাইজান, তুর্কমেনিস্তান, উজবেকিস্তান, তুরস্ক এবং ইরাকেও এ উৎসব জাতীয় পর্যায়ে পালিত হচ্ছে। এছাড়া, উৎসবটি কম-বেশি পালিত হচ্ছে জর্জিয়া, পাকিস্তান ও ভারতেও।  আমেরিকা ও কানাডাসহ বিভিন্ন দেশে বসবাসরত ইরানি নাগরিকরা নওরোজ উদযাপন করছেন। প্রায় তিন হাজার বছর ধরে ইরানে নওরোজ উদযাপন করা হয়।#

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/২০

 

২০১৭-০৩-২১ ১৩:২২ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য