ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের উত্তর-পশ্চিম সীমান্তবর্তী এলাকায় ভয়াবহ ভূমিকম্পে ৪৩০ জন নিহত ও সাত হাজারের বেশি মানুষ আহত হয়েছেন। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বহু ঘরবাড়ি ও স্থাপনা।

ভূমিকম্প দুর্গত এলাকায় প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি

ভূমিকম্পের পর ঘটনাস্থলে ছুটে গেছেন প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি, মন্ত্রিপরিষদের বিভিন্ন সদস্য এবং সেনা ও বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর কমান্ডাররা।

উদ্ধার তৎপরতা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে ছুটে গেছেন পুলিশ প্রধান, পাশাপাশি আহতদের চিকিৎসার জন্য গেছে মেডিক্যাল টিম। সামগ্রিক উদ্ধার তৎপরতায় বড় ভূমিকা পালন করছে সামরিক বাহিনী ও রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি।

ভূমিকম্পে বড় রকমের ক্ষয়ক্ষতির পর যেন পুরো জাতি ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্যের জন্য আরো বেশি ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। এরইমধ্যে একদিনের জাতীয় শোক ঘোষণা করা হয়েছে।

ইরাক সীমান্তবর্তী এলাকার এ ভূমিকম্পকে তিক্ত ও দুঃখজনক ঘটনা বলে উল্লেখ করেছে ইরানের মন্ত্রিসভা।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী কেরমানশাহ প্রদেশের বাসিন্দা ও ভূমিকম্পে বেঁচে যাওয়া লোকজন এবং তাদের পরিবার-পরিজনের প্রতি গভীর সমবেদনা ও সহানুভূতি প্রকাশ করে দুর্গত এলাকার লোকজনকে দ্রুত উদ্ধারের আশা প্রকাশ করা করেছেন।#

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/১৪

 

২০১৭-১১-১৪ ২১:১৫ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য