• কঠিন সময়ে শিয়া ও সুন্নিরা একে অপরের পাশে দাঁড়িয়েছে: সর্বোচ্চ নেতা

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ি বলেছেন, ইরানে সবচেয়ে কঠিন সময়ে শিয়া ও সুন্নি মুসলমান ভাইয়েরা একে অপরের পাশে দাঁড়িয়েছে। তিনি আরও বলেছেন, সামরিক ও সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে শত্রুদের ব্যাপক ষড়যন্ত্র ও নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও ইসলামি ইরানের দৃঢ় অবস্থানের পেছনে রয়েছে জনগণের ঈমানি শক্তি ও আত্মত্যাগ।

ইরানের সিস্তান-বালুচিস্তান প্রদেশের শহীদ বিষয়ক সম্মেলন উপলক্ষে এক বাণীতে সর্বোচ্চ নেতা এসব কথা বলেন।

আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ি আরও বলেছেন, সিস্তান-বালুচিস্তান প্রদেশে বিপুল সংখ্যক মেধাবীর জন্ম হয়েছে। কিন্তু কাজার ও পাহলাভি আমলে এই প্রদেশের মানুষকে গুরুত্ব দেয়া হয় নি। এ কারণে সেখানকার মেধাবীরা পরিচিতি পান নি। তিনি বলেন, কুর্দিস্তান ও গোলেস্তানের মতো সিস্তান-বালুচিস্তানও ইসলামি ঐক্য এবং শিয়া- সুন্নি মুসলমানদের মধ্যে ভ্রাতৃত্বপূর্ণ জীবনযাপন ও পারস্পরিক সহযোগিতার আদর্শ।

তিনি শত্রুদের বিভেদ সষ্টির ষড়যন্ত্রের বিষয়ে সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান। সর্বোচ্চ নেতা আরও বলেন, প্রতিরক্ষা যুদ্ধের সময় একজন সুন্নি তরুণের শাহাদাৎ বা ইসলামি বিপ্লবের পক্ষে কথা বলার কারণে বিপ্লববিরোধীদের হাতে একজন সুন্নি মাওলানার শহীদ হওয়ার ঘটনা প্রমাণ করে ইসলামি ইরানে শিয়া ও সুন্নি মুসলমান ভাইয়েরা সবচেয়ে কঠিন সময়ে একে অপরের পাশে দাঁড়ায়। শিল্প-সংস্কৃতির মাধ্যমে অকৃত্রিম এই ঐক্য ও বন্ধনকে তুলে ধরতে হবে।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা বলেন, শহীদরা হচ্ছেন প্রকৃত ঈমানের পরিপূর্ণ প্রতীক। এ কারণে ইসলামি শাসন ব্যবস্থায় শহীদদের প্রতি সম্মান ও শ্রদ্ধা প্রদর্শন অত্যন্ত জরুরি।#

পার্সটুডে/সোহেল আহম্মেদ/১৩

 

ট্যাগ

২০১৮-০২-১৩ ১৭:২৩ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য