ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি ভিয়েনায় আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থা বা আইএইএ'র প্রধান ইউকিয়া আমানের সঙ্গে সাক্ষাতে বলেছেন, পরমাণু সমঝোতায় যদি তার দেশের জনগণের অধিকার রক্ষার নিশ্চয়তা না থাকে তাহলে তেহরান নিজের মতো করে নতুন সিদ্ধান্ত নেবে। তিনি বলেন, পরমাণু সমঝোতা ছিল অনেক বড় কূটনৈতিক সাফল্য এবং এটি টিকিয়ে রাখতে হলে সব পক্ষকে প্রতিশ্রুতি মেনে চলতে হবে।

এদিকে, ভিয়েনায় পরমাণু সমঝোতায় সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠকের প্রাক্কালে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাওয়াদ জারিফ এক টুইটার বার্তায় বলেছেন, "সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলো পরমাণু সমঝোতা অনুযায়ী প্রতিশ্রুতি রক্ষার কথা বলছেন, কিন্তু এখন তাদেরকে বাস্তবে তা প্রমাণ করে দেখাতে হবে।"

আমেরিকাকে ছাড়াই ভিয়েনায় পরমাণু সমঝোতার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর যৌথ কমিশনের বৈঠক ইউরোপের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ আমেরিকা পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পরও ইউরোপ এ চুক্তি পুরোপুরি বাস্তবায়নে কতখানি আগ্রহী সেটা তাদেরকে প্রমাণ করতে হবে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গত ৮মে পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিলেও ইউরোপীয় দেশগুলো এই চুক্তির প্রতি জোরালো সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু ইরানের বক্তব্য হচ্ছে ইউরোপীয় দেশগুলোকে কথায় নয় কাজে প্রমাণ করতে হবে।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী

ইরানের জনগণের স্বার্থ বজায় রেখে চুক্তি বাস্তবায়নের যে সময়সীমা তেহরান দিয়েছিল তা শেষ হওয়ার পথে। গণমাধ্যমে জানা গেছে, ইরানের স্বার্থ বজায় রেখে পরমাণু সমঝোতা টিকিয়ে রাখার জন্য ইউরোপ আগামীকাল (শুক্রবার) ইরানকে একটি প্যাকেজ প্রস্তাব দেবে। তবে যাই প্রস্তাব দেয়া হোক না কেন তা হতে হবে ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ীর বেধে দেয়া শর্তের ভিত্তিতে। ইরানের সর্বোচ্চ নেতা ইউরোপকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন, "পরমাণু সমঝোতা টিকিয়ে রাখতে হলে ইরানের তেল বিক্রির নিশ্চয়তা দিতে হবে, ইরানের সঙ্গে ইউরোপের ব্যাংকিং লেনদেন শুরু করতে হবে এবং মার্কিন নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে ইউরোপকে স্পষ্ট অবস্থান নিতে হবে।"

পরমাণু সমঝোতা টিকিয়ে রাখার জন্য এ পর্যন্ত খুব একটা অগ্রগতি হয়নি। তবে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট গতকাল (বুধবার) ইরানের সঙ্গ ইউরোপীয় পুঁজি বিনিয়োগ, ব্যবসা ও ব্যাংকিং সহযোগিতা চালুর প্রতি সমর্থন জানিয়েছে যা থেকে পরমাণু সমঝোতা টিকিয়ে রাখতে তাদের ইতিবাচক মনোভাবের পরিচয় ফুটে উঠেছে। রুশ উপপররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াভকভ বলেছেন, পরমাণু সমঝোতা টিকিয়ে রাখার প্রক্রিয়া বেশ এগিয়ে গেলেও তা মোটেই যথেষ্ট নয়।

রুশ উপপররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াভকভ

ইরানের কর্মকর্তারা তাদের স্বার্থ নিশ্চিত করে পরমাণু সমঝোতা টিকিয়ে রাখার জন্য ইউরোপের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন। তেহরান চায় নিষেধাজ্ঞা পুরোপুরি উঠিয়ে নেয়া হোক এবং ইউরোপ যেন এ সিদ্ধান্তে অটল থাকে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ইরানের বিরুদ্ধে কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপের হুমকি দেয়ায় ইউরোপীয় বড় বড় কোম্পানি ইরানের সঙ্গে সহযোগিতা অব্যাহত রাখার ব্যাপারে দ্বিধাদ্বন্দ্বে পড়েছে এবং অনেক কোম্পানি এরই মধ্যে ইরানের সঙ্গে ব্যবসা গুটিয়ে নিয়েছে। পরমাণু সমঝোতা রক্ষার জন্য ইউরোপীয় কর্মকর্তারা যেসব বড় বড় বক্তব্য দিচ্ছেন এ পরিস্থিতি তার সঙ্গে মানায় না। এ কারণে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইউরোপকে কাজেকর্মে তাদের স্বদিচ্ছা প্রমাণ করার আহ্বান জানিয়েছেন।# 

পার্সটুডে/রেজওয়ান হোসেন/৫

 

২০১৮-০৭-০৫ ১৮:২৩ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য