• সম্প্রতি সিঙ্গাপুরে ওয়াং ই\'র সঙ্গে জাওয়াদ জারিফের সাক্ষাৎ (ফাইল ছবি)
    সম্প্রতি সিঙ্গাপুরে ওয়াং ই\'র সঙ্গে জাওয়াদ জারিফের সাক্ষাৎ (ফাইল ছবি)

চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই বলেছেন, নয়া আন্তর্জাতিক প্রেক্ষাপটে ইরানের সঙ্গে সম্পর্ক ও সহযোগিতা শক্তিশালী করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বেইজিং। তিনি শুক্রবার রাতে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফের সঙ্গে এক টেলিফোনালাপে এ প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

তিনি ইরানের পরমাণু সমঝোতাকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অর্জন হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, বহুপাক্ষিক এ চুক্তিতে ইরানের সঙ্গে প্রতিটি দেশের দ্বিপক্ষীয় স্বার্থ চমৎকারভাবে রক্ষিত হয়েছে। চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী একটি দেশের পক্ষ থেকে বিশ্বের অন্য দেশগুলোর ওপর একতরফা নিষেধাজ্ঞা চাপিয়ে দেয়ার তীব্র বিরোধিতা করেন।

টেলিফোনালাপে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জারিফ পরমাণু সমঝোতার নানা দিক তুলে ধরে এটি বাস্তবায়নে চীনকে আরো গঠনমূলক ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।

২০১৫ সালে পরমাণু সমঝোতই সই হওয়ার পর ফটোসেশন। এখানে সর্বডানে রয়েছেন তৎকালীন মার্কিন পরররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি

 

২০১৫ সালের জুলাই মাসে আমেরিকাসহ ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে ইরানের পরমাণু সমঝোতা সই হয়। ওই মাসেই জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে এ সমঝোতা অনুমোদনের মাধ্যমে এটি আন্তর্জাতিক আইনে পরিণত হয়।

কিন্তু মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গত মে মাসে সেই আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে এ সমঝোতা থেকে তার দেশকে বের করে নেন এবং তেহরানের ওপর পরবর্তী তিন থেকে ছয় মাসের মধ্যে নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালের ঘোষণা দেন। ওই ঘোষণা অনুযায়ী গত সপ্তাহে প্রথম দফা নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করেছে ওয়াশিংটন।

আমেরিকা বেরিয়ে গেলেও পরমাণু সমঝোতার বাকি পক্ষগুলো অর্থাৎ ব্রিটেন, ফ্রান্স, জার্মানি, রাশিয়া, চীন ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন এ সমঝোতায় টিকে থাকবে বলে ঘোষণা দিয়ে ইরানের সঙ্গে সহযোগিতা চালিয়ে যাবে বলে জানিয়েছে।#

পার্সটুডে/মুজাহিদুল ইসলাম/১৮

২০১৮-০৮-১৮ ০৬:৫৪ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য