• শুক্রবার বিকেলে ইমরান খানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ
    শুক্রবার বিকেলে ইমরান খানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, ইরানের সঙ্গে সার্বিক সম্পর্ক উন্নয়নের প্রতিটি সুযোগকে তিনি কাজে লাগাতে চান। তিনি আরো বলেছেন, প্রতিবেশী দেশ ইরানের সঙ্গে সম্পর্ক শক্তিশালী করা ইসলামাবাদের জন্য অতি জরুরি।

পাকিস্তান সফররত ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ শুক্রবার বিকেলে ইমরান খানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে পাক প্রধানমন্ত্রী একথা বলেন। সাক্ষাতে ইমরান খান ইরানকে ‘সভ্যতা ও প্রাচ্যের উন্নয়নের সূতিকাগার’ হিসেবে অভিহিত করেন।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইরানের সঙ্গে সকল ক্ষেত্রে বিশেষ করে অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক সহযোগিতা শক্তিশালী করার আগ্রহ প্রকাশ করেন।

সাক্ষাতে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিশ্বে ইসলাম-আতঙ্ক ছড়িয়ে দেয়ার অপচেষ্টার মোকাবিলায় তেহরান-ইসলামাবাদ সহযোগিতার গুরুত্ব তুলে ধরেন। একইসঙ্গে তিনি ইরান ও পাকিস্তান উভয় দেশের স্বার্থে দ্বিপক্ষীয় অর্থনৈতিক সহযোগিতা জোরদার করার আহ্বান জানান।

সাক্ষাতে সন্ত্রাস বিরোধী যুদ্ধ ও আঞ্চলিক নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠার ওপর গুরুত্ব আরোপ করা হয়।

এর আগে শুক্রবার সকালে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ। ওই সাক্ষাতের ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তার দেশ পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক শক্তিশালী করার ক্ষেত্রে কোনো সীমারেখা মানবে না।

সাক্ষাতে শাহ মেহমুদ কুরেশি ইরান-পাকিস্তান সম্পর্কের গুরুত্ব তুলে ধরে বলেন, বিভিন্ন ক্ষেত্রে দু’দেশের মধ্যকার সম্পর্ক ও সহযোগিতা শক্তিশালী করতে হবে। মুসলিম বিশ্বের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানেও তেহরান-ইসলামাবাদ সম্পর্ক জরুরি বলে তিনি মন্তব্য করেন।

পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের আগে জারিফ পাকিস্তানের সেনপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া ও সংসদ স্পিকার আসাদ কায়সারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পাকিস্তানের নয়া সরকারের সঙ্গে তেহরানের সম্পর্ক শক্তিশালী করার লক্ষ্যে বৃহস্পতিবার বিকেলে ইসলামাবাদ সফরে যান।#

পার্সটুডে/মুজাহিদুল ইসলাম/১

ট্যাগ

২০১৮-০৯-০১ ০৬:২০ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য