২০১৮-১১-৩০ ১০:২৮ বাংলাদেশ সময়
  • অবৈধ অর্থ সরবরাহের মার্কিন দাবি প্রত্যাখ্যান করল ইরানি ব্যাংক

ইরানের মেল্লি ব্যাংক ইরাকের মিলিশিয়াদের কাছে শত শত কোটি ডলারের অবৈধ অর্থ সরবরাহ করেছে বলে মার্কিন অর্থ মন্ত্রণালয়ের বিদেশি সম্পদ নিয়ন্ত্রণ বিভাগ বা ওএফএসি যে দাবি করেছে তা প্রত্যাখ্যান করেছে ওই ব্যাংক।

ব্যাংক মেল্লি এক বিবৃতিতে বলেছে, ইরান বিরোধী কিছু গণমাধ্যম কয়েক দিন আগে ইরাকি মিলিশিয়াদের কাছে অর্থ সরবরাহের যে দাবি করেছিল তারই পুনরাবৃত্তি করেছে ওএফএসি যা ‘সম্পূর্ণ বাস্তবতা বিবর্জিত এবং অস্তিত্বহীন।’

চলতি মাসের গোড়ার দিকে ওএফএসি ইরানের অন্তত ৭০০ ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান, বিমান ও জাহাজের ওপর নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করে। ২০১৫ সালে পরমাণু সমঝোতার জের ধরে আমেরিকা ওই নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছিল। কিন্তু গত মে মাসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ওই সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গিয়ে ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালের ঘোষণা দিয়েছিলেন।

আমেরিকার অর্থ মন্ত্রণালয়

ওএফএসি এক বিবৃতিতে দাবি করেছিল, ব্যাংক মেল্লি তার ইরাকি শাখার মাধ্যমে ইরাকে অবস্থানরত ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি’র কুদস ব্রিগেডের কাছে শত শত কোটি ডলারের সমপরিমাণ অর্থ সরবরাহ করছে।

ইরাকে উগ্র জঙ্গি গোষ্ঠী দায়েশ বা আইএসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে দেশটির সেনাবাহিনীকে সহযোগিতা করছে কুদস ব্রিগেড।

মার্কিন দাবির জবাবে ইরানের মেল্লি ব্যাংক তার বিবৃতিতে বলেছে, এটির ইরাকি শাখায় এ পর্যন্ত যত অর্থ সরবরাহ করা হয়েছে তা আমেরিকার দাবির তুলনায় অত্যন্ত কম এবং গোটা অর্থ লেনদেন হয়েছে অত্যন্ত স্বচ্ছভাবে ইরাকের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের দিকনির্দেশনা অনুসারে।

ব্যাংক মেল্লির বিবৃতিতে আরো বলা হয়, মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে এটির সব শাখা আন্তর্জাতিক আইনের পাশাপাশি স্বাগতিক দেশের আইন মেনে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছে। ২০০৭ সালে ইরাকে নিজের শাখা খুলেছিল ‘ব্যাংক মেল্লি ইরান’।  

পার্সটুডে/মুজাহিদুল ইসলাম/৩০

ট্যাগ

মন্তব্য