২০১৯-০২-১৩ ১৭:১৩ বাংলাদেশ সময়
  • ইরানের সর্বোচ্চ নেতা
    ইরানের সর্বোচ্চ নেতা

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী বলেছেন, ইসলামি ইরান কোনো সংঘাতেই প্রথমে কারো ওপর গুলি ছোড়ে নি, এমনকি আমেরিকা ও সাদ্দামের দিকেও না। সব ক্ষেত্রেই শত্রু হামলা করার পর ইরান নিজেকে রক্ষা করেছে। অবশ্য হামলার শিকার হওয়ার পর কঠোর জবাব দিয়েছে।

আমেরিকার সঙ্গে আলোচনা তিনি প্রসঙ্গে বলেছেন, আমেরিকার সঙ্গে আলোচনা করে কোনো লাভ হবে না। ইরান আমেরিকা ও কয়েকটি ইউরোপীয় দেশকে প্রতারক ও বিশ্বাসঘাতক বলে মনে করে। এসব দেশকে ইরানিরা বিশ্বাস করে না। আমেরিকার সঙ্গে আলোচনা করলে বৈষয়িক ও আধ্যাত্মিক ক্ষতিই কেবল আসবে। ইসলামি বিপ্লবের ৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষে 'বিপ্লবের দ্বিতীয় ধাপ' শীর্ষক এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেছেন। 

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা বলেন, ইহুদিবাদী ইসরাইলের সীমান্তে ইরানের সরব উপস্থিতি, পশ্চিম এশিয়ায় আমেরিকার অবৈধ প্রভাব ক্ষুণ্ণ করার ক্ষেত্রে ইরানের ভূমিকা এবং ফিলিস্তিনি মুজাহিদদের সংগ্রাম ও হিজবুল্লাহসহ এই অঞ্চলের প্রতিরোধ আন্দোলনগুলোর প্রতি সমর্থন এখন আমেরিকার জন্য বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। 

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা বলেন, আধিপত্যকামী দেশগুলোর নেতারা ইরানকে নিয়ে উদ্বেগে রয়েছে। তারা যেসব প্রস্তাব দিচ্ছে সেগুলো প্রত্যারণা ও মিথ্যাচারে ভরপুর। তিনি বলেন, ইরানি জাতি এখন ইউরোপের কয়েকটি দেশকেও প্রতারক বলে মনে করে। ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের সরকারকেও জোরালোভাবে এই সীমারেখা মেনে চলত হবে। ইসলামী ও জাতীয় মূল্যবোধ থেকে এক কদমও পিছুহটা যাবে না। তাদের হুমকির গুরুত্ব নেই, তাতে ভয় পাওয়া যাবে না।

ইরানের সরকারকে পরামর্শ দিয়ে আরও বলেন, সব ক্ষেত্রে দেশ ও জাতির সম্মান ও মর্যাদার বিষয়টি খেয়াল রাখতে হবে। ইসলামি বিপ্লবী অবস্থানে অটুট থেকে বিজ্ঞতার সঙ্গে সঠিক উপায়ে তাদের সঙ্গে সমাধানযোগ্য সমস্যাগুলো মিটিয়ে ফেলতে হবে।#

পার্সটুডে/সোহেল আহম্মেদ/১৩

ট্যাগ

মন্তব্য