• বায়তুল মুকাদ্দাস ইস্যুতে কঠোর পদক্ষেপের পক্ষে রুহানি ও এর্দোগান

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি ও তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এর্দোগান ফিলিস্তিনের বিরুদ্ধে নয়া ষড়যন্ত্র মোকাবিলায় কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণের পক্ষে মত দিয়েছেন। তুর্কি প্রেসিডেন্ট আজ (বুধবার) ইরানের প্রেসিডেন্টকে ফোন করে ওআইসি'র বৈঠকে অংশ নেওয়ার আমন্ত্রণ জানান। এ সময় তাদের মধ্যে বায়তুল মুকাদ্দাসকে দখলদার ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণার ষড়যন্ত্রের বিষয়ে কথা হয়।

পবিত্র আল আকসা মসজিদ

উভয় নেতাই বলেন, বায়তুল মুকাদ্দাস হচ্ছে ফিলিস্তিনের অবিচ্ছেদ্য অংশ। এ সময় ড. রুহানি বলেছেন, ইরান মনে করে বর্তমান পরিস্থিতিতে সব মুসলিম দেশকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে এবং আমেরিকার উসকানিমূলক, অবৈধ ও বিপজ্জনক সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপের ঘোষণা দিতে হবে। তিনি বলেন, মুসলিম বিশ্বের প্রধান এজেন্ডাগুলোর মধ্যে ফিলিস্তিন, বায়তুল মুকাদ্দাস ও ইসরাইলের অন্যায় তৎপরতা মোকাবিলা অন্যতম। 

ফিলিস্তিনের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র মোকাবিলায় এগিয়ে আসতে বিশ্বের সব মুসলিম দেশ ও শান্তিকামীদের প্রতি আহ্বান জানান রুহানি। তিনি বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে বায়তুল মুকাদ্দাসের বিষয়ে মুসলমানদেরকে কঠিন দায়িত্ব পালন করতে হবে।  

তুর্কি প্রেসিডেন্ট এর্দোগান বলেন, মুসলিম বিশ্বের নিজেদের মধ্যে অনৈক্যের কারণে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বায়তুল মুকাদ্দাস ইস্যুতে ঔদ্ধত্যপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে পেরেছেন। তিনিও ষড়যন্ত্রের মোকাবিলায় ঐক্যবদ্ধভাবে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণের ওপর জোর দিয়েছেন। 

বায়তুল মুকাদ্দাস বা জেরুজালেমে মুসলমানদের প্রথম কেবলা আল আকসা মসজিদ অবস্থিত।#

পার্সটুডে/সোহেল আহম্মেদ/৬

২০১৭-১২-০৬ ১৯:১৯ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য