• সিরিয়ার আফরিনে তুর্কিপন্থি গেরিলাদের গোলাবর্ষণ (সোমবারের ছবি)
    সিরিয়ার আফরিনে তুর্কিপন্থি গেরিলাদের গোলাবর্ষণ (সোমবারের ছবি)

সিরিয়ার আফরিন এলাকায় দামেস্ক সরকারের অনুগত যোদ্ধাদের ওপর হামলা চালিয়েছে তুরস্কের সামরিক বাহিনী। কুর্দি অধ্যুষিত আফরিন শহরে মঙ্গলবার এসব যোদ্ধা প্রবেশ করেছে। তুর্কি সেনাদের অভিযানের মুখে সিরিয়ার কুর্দি নাগরিকদের রক্ষার জন্য দামেস্কপন্থি যোদ্ধা আফরিন শহরে গেছে।

সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা সানা জানিয়েছে, সিরিয়ার সরকারপন্থি যোদ্ধা ন্যাশনাল ডিফেন্স ফোর্স বা এনডিএফ’র অবস্থানে তুরস্কের সেনারা কামান ও মর্টারের গোলাবর্ষণ করে। মঙ্গলবার আফরিন শহরে শত শত দামেস্কপন্থি যোদ্ধা ঢুকেছে।

তুরস্কের সরকারি বার্তা সংস্থা আনাদোলু বলেছে, তুরস্কের সেনারা সিরিয়ার যোদ্ধাদের সতর্ক করে গোলাবর্ষণ করে। এরপর এসব যোদ্ধা ১০ কিলোমিটার পিছু হটে যায় বলে আনাদোলু দাবি করে।

সিরিয়ার সরকারপন্থি যোদ্ধাদের ওপর তুর্কি বাহিনী গোলাবর্ষণের ঘটনার পর উত্তেজনা মারাত্মক পর্যায়ে পৌঁছেছে। আফরিনে কুর্দি গেরিলা গোষ্ঠী ওয়াইপিজি’র বিরুদ্ধে অভিযানকে কেন্দ্র করে সিরিয়া ও তুরস্কের মধ্যে আগে থেকেই উত্তেজনা চলে আসছিল। আফরিন শহরে তুর্কি অভিযানকে সিরিয়া অবৈধ বলে অভিহিত করেছে। মঙ্গলবার ওয়াইপিজি এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, তারা সিরিয়া সরকারের কাছে সহায়তা চেয়েছে। সিরিয়া সরকার মনে করছে, দেশের জনগণকে রক্ষার দায়িত্ব তার এবং কুর্দিদের আবেদনে সাড়া দিয়ে সরকার সেখানে যোদ্ধা পাঠিয়েছে। এসব যোদ্ধা সীমান্তে অবস্থান নেবে এবং সিরিয়ার ভৌগোলিক অখণ্ডতা রক্ষা করবে।

২০১২ সাল থেকে এলাকাটি কুর্দি গেরিলাদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এরপর এই প্রথম সিরিয়ার সরকার সেখানে নিজস্ব বাহিনী মোতায়েনের উদ্যোগ নিয়েছে।#  

পার্সটুডে/সিরাজুল ইসলাম/২১ 

 

ট্যাগ

২০১৮-০২-২১ ০২:৩৭ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য