• সৌদি রাজা সালমান ও যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমান
    সৌদি রাজা সালমান ও যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমান

সৌদি রাজা সালমান সোমবার মধ্যরাতে জারি করা এক ডিক্রিতে দেশটির সেনাবাহিনীর চিফ অব স্টাফসহ শীর্ষ সেনা কমান্ডারদের বরখাস্ত করেছেন। তিনি পদাতিক বাহিনী ও এয়ার ডিফেন্স বাহিনীর কমান্ডারদেরও সরিয়ে দিয়েছেন।

সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা এসপিএ’তে এ খবর প্রকাশ করা হলেও সেনা কমান্ডারদের বরখাস্ত করার কোনো কারণ জানানো হয়নি।  ইয়েমেনের বিরদ্ধে সৌদি আরবের অন্যায় ও বর্বরোচিত আগ্রাসন শুরুর তৃতীয় বর্ষপূর্তির একমাস আগে এ ঘটনা ঘটালেন রাজা সালমান।

এসপিএ জানিয়েছে, সেনাবাহিনী চিফ অব স্টাফ আব্দুর রহমান বিন সালেহ আল-বুনিয়ানকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে।

যুবরাজ ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী মোহাম্মাদ বিন সালমান সেনাবাহিনীতে এই রদবদলের প্রধান হোতা বলে মনে করা হচ্ছে। গত বছরের শেষদিকে দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে তিনি সৌদি আরবের বহু প্রিন্স, মন্ত্রী ও ধনকুবেরকে বন্দি করে রিয়াদের একটি পাঁচতারকা হোটেলে আটকে রেখেছিলেন।

সৌদি যুবরাজের উদ্যোগেই ইয়েমেনে ২০১৫ সালের মার্চ মাস থেকে ভয়াবহ আগ্রাসন শুরু করে রিয়াদ। কিন্তু টানা তিন বছর ধরে বর্বরোচিত এ আগ্রাসন চালিয়ে ইয়েমেনে মানবিক বিপর্যয় সৃষ্টি করা ছাড়া অন্য কোনো সুফল পায়নি সৌদি সরকার। এদিকে যুদ্ধের বিশাল ব্যয় সামাল দিতে গিয়ে রিয়াদকে ব্যয় সংকোচন কর্মসূচি গ্রহণ করতে হয়েছে।

রিয়াদের পাঁচতারকা হোটেলের ফ্লোরের এভাবেই বন্দি ছিলেন প্রিন্স ওয়ালিদ বিন তালাল (সামনে খালি মাথা)

সৌদি রাজার মধ্যরাতের ডিক্রিতে কয়েকটি রাজনৈতিক নিয়োগও দেয়া হয়েছে। দেশটির শ্রম ও সামাজিক উন্নয়ন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী হিসেবে নজিরবিহীনভাবে নিয়োগ পেয়েছেন নারী নেত্রী তামাদার বিনতে ইউসেফ আর-রামাহ। দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় আসির প্রদেশের নয়া উপ-গভর্নরের দায়িত্ব পেয়েছেন প্রিন্স তুর্কি বিন তালাল।

তিনি কোটিপতি ধনকুবের প্রিন্স আলওয়ালিদ বিন তালালের ভাই। গত বছরের শেষদিকে দুর্নীতি বিরোধী অভিযানে ওয়ালিদ বিন তালালও গ্রেফতার হয়েছিলেন এবং দুই মাস পর এক গোপন সমঝোতায় মুক্তি পান তিনি।#

পার্সটুডে/মুজাহিদুল ইসলাম/২৭

 

২০১৮-০২-২৭ ০৭:০৭ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য