• কাতারের একটি শপিং মল (ফাইল ছবি)
    কাতারের একটি শপিং মল (ফাইল ছবি)

সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন যে চার দেশ প্রায় এক বছর আগে কাতারের ওপর অবরোধ আরোপ করেছিল সেসব দেশের পণ্য বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে দোহা। কাতারের অর্থ ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় শনিবার এক ঘোষণায় ওই চার দেশের পণ্য আমদানি নিষিদ্ধ করেছে।

সেইসঙ্গে এরইমধ্যে এসব দেশের যেসব পণ্য কাতারের ভেতরে রয়েছে সেসব বিক্রির ওপরও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ওই মন্ত্রণালয়। এটি বলেছে, দেশের সব দোকান ও শপিং মল যেন ওই চার দেশের পণ্য তাদের তাক থেকে সরিয়ে ফেলে।

সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন ও মিশর ২০১৭ সালের জুন মাসে কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে দেশটির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। রিয়াদের উদ্যোগে ওই চার দেশ এ কাজ করে বলে ব্যাপকভাবে ধারণা করা হয়।

ওই চার দেশ ‘সন্ত্রাসবাদ ছড়িয়ে দেয়া’ এবং ‘মধ্যপ্রাচ্যকে অস্থিতিশীল’ করার প্রচেষ্টা চালানোর জন্য কাতারকে অভিযুক্ত করে এ পদক্ষেপ নেয়। সৌদি নেতৃত্বাধীন এ দেশগুলোকে অনুসরণ করে আফ্রিকার কয়েকটি দেশও কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে।

ছোট্ট আরব দেশ কাতার

সৌদি-নেতৃত্বাধীন দেশগুলো নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের জন্য কাতারকে কয়েকটি শর্ত দেয়। এসব শর্তের মধ্যে রয়েছে- আল জাযিরা নিউজ চ্যানেল বন্ধ করে দেয়া, কাতারের মাটি থেকে তুর্কি সেনা বহিষ্কার, ইরানের সঙ্গে সম্পর্ক কমিয়ে আনা এবং মিশরের মুসলিম ব্রাদারহুডের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করা।

কিন্তু কাতার এসব দাবির কাছে নতি স্বীকার না করে ঘোষণা করে, আরব দেশগুলো কাতারের সার্বভৌমত্বের বিরুদ্ধে আঘাত হেনেছে। এর জের ধরে ওই চার দেশ তাদের জল, স্থল ও আকাশপথ কাতারের জন্য বন্ধ করে দেয়।

এ অবস্থায় ইরানসহ অন্যান্য দেশের সহযোগিতায় নিষেধাজ্ঞার ক্ষতি কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করে কাতার। দেশটির সে প্রচেষ্টার সফলতার প্রমাণ হিসেবে চার আরব দেশের নিষেধাজ্ঞার এক বছরেরও কম সময়ের মধ্যে দেশগুলোর পণ্য নিষিদ্ধ করল দোহা।#

পার্সটুডে/মুজাহিদুল ইসলাম/২৭

ট্যাগ

২০১৮-০৫-২৭ ০৫:৩৭ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য