সৌদি সরকারের সঙ্গে মুসলমানদের প্রথম কিবলা ও ফিলিস্তিনের দখলদার ইসরাইলের ঘনিষ্ঠতা দিনকে দিন বাড়তে থাকলেও সৌদি ব্যাডমিন্টন টিম ইউক্রেনে এ খেলার একটি আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় ইসরাইলি প্রতিযোগীর সঙ্গে তাদের নির্ধারিত খেলা বর্জন করেছে।

অবৈধ রাষ্ট্র ও সরকার ইসরাইল প্রায়ই এ ধরনের লজ্জাজনক পরিস্থিতির মুখোমুখি হচ্ছে। আরব সংবাদ-মাধ্যম 'আল খালিজ আল-জাদিদ'-এর বরাত দিয়ে এ খবর প্রচার করেছে ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন, বার্তা-সংস্থা ইরনা ও ইসনাসহ নানা সংবাদ-মাধ্যম এবং ইসরাইলের সংবাদ-মাধ্যম 'ইসরাইল-ন্যাশনাল'। 

সম্প্রতি ইউক্রেনে অনুষ্ঠিত এক আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতার লটারি অনুযায়ী ইসরাইলি ব্যাডমিন্টন টিমের সঙ্গে খেলার কথা ছিল সৌদি টিমের। কিন্তু দুই সদস্যের সৌদি টিম এই খেলা বর্জন করায় সৌদি টিম পুরো টুর্নামেন্ট থেকেই বাদ পড়ে। এর আগে গত বৃহস্পতিবারের খেলায় সৌদি টিম বিজয়ী হয়েছিল।

মুসলিম বিশ্বের জনমতকে উপেক্ষা করে সৌদি সরকার ক্রমেই ইসরাইলের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা জোরদার করছে

খেলার মাঠে আসার পর দুই সৌদি খেলোয়াড় তাদের প্রতিপক্ষ বা প্রতিদ্বন্দ্বী ইউক্রেনের এক খেলোয়াড় ও ইসরাইলি এক খেলোয়াড়ের সঙ্গে হাত মেলাতেও অস্বীকার করেন এবং তাদের ব্যাগ নিয়ে খেলার মাঠ ছাড়তে থাকেন। তাদের এ আচরণে ম্যাচের রেফারি ও প্রতিদ্বন্দ্বীরা হতভম্ব হয়ে পড়ে। অন্যদিকে সৌদি কোচ তার শাগরেদদের মাঠ-ত্যাগের দৃশ্য ভিডিও করছিলেন। 

এ ছাড়াও সম্প্রতি চেক প্রজাতন্ত্রে রসায়ন বিজ্ঞানের আন্তর্জাতিক অলিম্পিয়াড প্রতিযোগিতায় পুরস্কার বিতরণের সময় মেডেল-জয়ী এক সৌদি প্রতিযোগী একই প্রতিযোগিতায় পুরস্কার নিতে-আসা এক ইসরাইলি প্রতিযোগীর পাশে দাঁড়াতে রাজি হননি। ওই সৌদি ছাত্র ইসরাইলি শিক্ষার্থীর কাছ থেকে দূরে সরে গিয়ে পুরস্কার-জয়ী ইরানি ছাত্রদের পাশে দাঁড়ান।  

খেলাধুলা ও আন্তর্জাতিক সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার অঙ্গনেও বর্ণবাদী ইসরাইল ক্রমেই একঘরে হয়ে পড়ছে

এসব ঘটনা থেকে বোঝা যায় ইসরাইলের সঙ্গে কূটনৈতিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্কের বিষয়ে কোনো কোনো সরকার বিশ্বাসঘাতকতামূলক নীতি অনুসরণ করে আসলেও  বর্ণবাদী ও দখলদার অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলকে ঘৃণা করছে মুসলিম বিশ্বসহ গোটা বিশ্বের জনমত ও সাধারণ জনগণ।  

উল্লেখ্য, ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরান সব ধরনের আন্তর্জাতিক বা আঞ্চলিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতাসহ যে কোনো ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় ইসরাইলের সঙ্গে খেলা বর্জন করে থাকে এবং এ জন্য দেশটির টিমকে অনেক প্রতিযোগিতায় কম পয়েন্ট নিয়ে অসময়ে অপ্রত্যাশিতভাবে বিদায়ও নিতে হয়েছে।

ইরাক ও ইরানসহ বেশিরভাগ মুসলিম দেশের জাতীয় দলও ইসরাইলি টিমের সঙ্গে খেলা ও সাংস্কৃতিক বা বিজ্ঞান-প্রতিযোগিতা বর্জন করে থাকে। 

সৌদি যুবরাজ মুহাম্মাদ বিন সালমান ফিলিস্তিনে ইসরাইলের অস্তিত্বকে বৈধ বলে ঘোষণা দিয়ে সৌদি-ইসরাইল গোপন সম্পর্কের আসল চরিত্র তুলে ধরেছেন

রাশিয়ায় সাম্প্রতিক বিশ্বকাপ ফুটবল প্রতিযোগিতা শুরুর আগে আর্জেন্টিনার জাতীয় ফুটবল দল ইহুদিবাদী ইসরাইলের জাতীয় ফুটবল দলের সঙ্গে একটি অনুশীলন বা প্রীতি-ম্যাচ খেলার প্রস্তাব নাকচ করে দেয়। ইসরাইলি দখলদারিত্ব ও ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের স্বদেশে ফিরতে না দেয়ার ইসরাইলি নীতির প্রতিবাদে  ফিলিস্তিনের গাজার সাধারণ জনগণের শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ মিছিলের ওপর ইসরাইলের ব্যাপক হত্যাযজ্ঞের প্রেক্ষাপটে আর্জেন্টিনা ওই খেলায় অংশ নিতে অস্বীকার করে। এ অবস্থায়  আর্জেন্টিনার ফুটবল-তারকা মেসি বিশ্বকাপের এক খেলায় (আইসল্যান্ডের বিপক্ষে) পেনাল্টি শর্টে গোল দিতে ব্যর্থ হলে ইসরাইলের যুদ্ধ-মন্ত্রী লিবারম্যান পরিহাস করে বলেন, মেসি ইসরাইলের সঙ্গে অনুশীলন ম্যাচে অংশ নিলে সহজেই এই গোল দিতে পারতেন! #

পার্সটুডে/এমএএইচ/৬ 

খবরসহ আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত সব লেখা ফেসবুকে পেতে এখানে ক্লিক করুন এবং নোটিফিকেশনের জন্য লাইক দিন

ট্যাগ

২০১৮-০৮-০৬ ১৯:৪১ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য