• আলোচনার মাধ্যমে ইয়েমেন সংকট সমাধানের চেষ্টা ব্যর্থ করে দিয়েছে সৌদি আরব

সৌদি আরব শান্তিপূর্ণ ও রাজনৈতিক উপায়ে ইয়েমেন সংকট অবসানের সব পথ বন্ধ করে দিয়ে ইয়েমেনের জনগণের বিরুদ্ধে তাদের আগ্রাসন ও অপরাধযজ্ঞ অব্যাহত রেখেছে।

জেনেভায় সম্প্রতি আলোচনার মাধ্যমে ইয়েমেন সংকট সমাধানের জন্য যে বৈঠকের উদ্যোগ নেয়া হয়েছিল তা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের ষড়যন্ত্রের কারণেই ওই আলোচনা বন্ধ হয়ে গেছে। ইয়েমেনের আসনারুল্লাহ আন্দোলনের রাজনৈতিক পরিষদ জানিয়েছে, তাদের একটি প্রতিনিধি দল আলোচনার জন্য জেনেভায় যেতে চাইলেও তাদেরকে বহনকারী ওমানের বিমানকে সানা থেকে উড্ডয়ন করতে দেয়নি সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট। ঠিক একইভাবে তারা এর আগেও ইয়েমেন ইস্যুতে জেনেভা বৈঠককে ভণ্ডুল করে দিয়েছিল। সৌদি আরব এমন সময় ফের জেনেভা বৈঠক বানচাল করে দিল যখন গত কয়েক মাসে সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট ইয়েমেনে হামলা চালিয়ে বহু নারী ও  শিশু হত্যা করেছে।

ইয়েমেনের ক্ষেপণাস্ত্র

তবে, ইয়েমেনের সেনা ও গণবাহিনীও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে সৌদি আগ্রাসনের পাল্টা জবাব দিয়েছে। ইয়েমেনের যোদ্ধারা জানিয়েছে, তারা সৌদি আরবের জিজান বিমান বন্দরে দু'টি বাদর-ওয়ান ব্যালেস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে হামলা চালিয়েছে। এর কিছুদিন আগে তারা সৌদি আরবের জাতীয় আরামকো তেল শোধনাগার কেন্দ্রে এবং জিজানের একটি রাসায়নিক কারখানায় চারটি বাদর-ওয়ান ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে। ইয়েমেনেরে সেনা ও আসনারুল্লাহ গণবাহিনী প্রায় প্রতিদিনই সৌদি আরবের গভীরে সামরিক স্থাপনাগুলোতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালাচ্ছে। এর প্রতিক্রিয়ায় সৌদি সামরিক জোট ইয়েমেনের বেসামরিক নাগরিকদের ওপর হামলা চালাচ্ছে।

ইয়েমেনের সেনারা নিজস্ব শক্তি সামর্থ্যকে কাজে লাগিয়ে সৌদি আগ্রাসনের বিরুদ্ধে পাল্টা প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে তুলেছে এবং সৌদি আরবের গভীরে এমনকি রাজধানী রিয়াদের উপকণ্ঠেও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালাচ্ছে। ইয়েমেনের এ ক্ষেপণাস্ত্র শক্তি সৌদি আরবের রাজনৈতিক ও সামরিক হিসাব নিকাশ পাল্টে দিয়েছে। এরই মধ্যে ইয়েমেন যুদ্ধে সৌদি আরবের রাজনৈতিক, সামরিক ও নৈতিক পরাজয় ঘটেছে। সৌদি আরব ও তার মিত্ররা তাদের পরাজয়ে বিস্মিত। এ লজ্জা ঢাকার জন্য তারা এখন ইয়েমেনের সাধারণ মানুষ বিশেষ করে নারী ও শিশুদের হত্যার পথ বেছে নিয়েছে। এর পাশাপাশি ইয়েমেনিদেরকে নতি স্বীকারে বাধ্য করার জন্য দরিদ্র ওই দেশটিকে সৌদি আরব আকাশ, স্থল ও সমুদ্র পথে অবরুদ্ধ করে রেখেছে।

ইয়েমেনের জনগণের বিরুদ্ধে সৌদি  আগ্রাসন বন্ধ করার জন্য আন্তর্জাতিক সমাজের উদ্যোগ নেয়া জরুরি হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে জাতিসংঘের নীরবতার কারণে সৌদি আরব আরো বেশি ঔদ্ধত্য হয়ে পড়েছে। #    

পার্সটুডে/রেজওয়ান হোসেন/৭

 

 

ট্যাগ

২০১৮-০৯-০৭ ১৭:২৩ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য