২০১৮-১২-১২ ১৭:০৭ বাংলাদেশ সময়
  • হুদাইদা বন্দর ছেড়ে দিন: সব পক্ষের প্রতি জাতিসংঘের আহ্বান

ইয়েমেন যুদ্ধে জড়িত পক্ষগুলোকে দেশটির কৌশলগত বন্দরনগরী হুদাইদা ছেড়ে চলে যেতে হবে এবং একটি অন্তবর্তীকালীন কমিটি এর নিয়ন্ত্রণের দায়িত্বে থাকবে বলে প্রস্তাব দিয়েছে জাতিসংঘ।

ইয়েমেন সংকট নিরসনের লক্ষ্যে সুইডেনে দেশটির জনপ্রিয় হুথি আনসারুল্লাহ আন্দোলন ও পলাতক প্রেসিডেন্ট আব্দ রাব্বু মানসুর হাদির অনুগত লোকজনের মধ্যে যে আলোচনা শুরু হয়েছে সেখানে আজ (মঙ্গলবার) জাতিসংঘের পক্ষ থেকে এ প্রস্তাব দেয়া হয়। আলোচনার সঙ্গে জড়িত তিনটি সূত্র বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছে যে ইয়েমেন বিষয়ক জাতিসংঘের বিশেষ প্রতিনিধি মার্টিন গ্রিফিথস হুদাইদা বন্দর নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে একটি যৌথ বা স্বাধীন কমিটি গঠনের প্রস্তাব দিয়েছেন। এ বন্দর দিয়েই ইয়েমেনে সব ধরনের বাণিজ্যিক পণ্য এবং ত্রাণ সহায়তা প্রবেশ করে থাকে।

মুহাম্মাদ আবদুস সালাম

এদিকে, এখন পর্যন্ত আলোচনায় ইয়েমেনের বিবদমান পক্ষগুলো হুদাইদা বন্দরে জাতিসংঘের ভূমিকাকে স্বাগত জানিয়েছে। তবে হুদাইদাকে নিরাপদ জোন হিসেবে ঘোষণা দেয়ার দাবি জানিয়েছে হুথি যোদ্ধারা এবং অন্যদিকে, প্রেসিডেন্ট আব্দ রাব্বু মানসুর হাদির অনুগত পক্ষ বন্দরের নিয়ন্ত্রণ স্বঘোষিত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনে রাখার কথা বলছে। 

ইয়েমেনের জনপ্রিয় হুথি আনসারুল্লাহ আন্দোলনের মুখপাত্র মুহাম্মাদ আবদুস সালাম জাতিসংঘের প্রস্তাব সম্পর্কে এক প্রতিক্রিয়ায় দেশটির আল মাসিরা টেলিভিশন চ্যানেলকে বলেছেন, ইয়েমেনে বিদেশি সেনার উপস্থিতি দেশের সংবিধান এবং নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাবের বিরোধী।

সম্প্রতি সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও হাদিপন্থি সন্ত্রাসীরা হুদাইদা বন্দর ‌এবং শহর দখলের জন্য ১০ হাজার সেনা নিয়ে অভিযান শুরু করে। তবে হুথি আনসারুল্লাহ যোদ্ধা ও তাদের সমর্থিত সেনাদের প্রবল প্রতিরোধের মুখে তাদের সে পরিকল্পনা এখনো সফল হয় নি।#

পার্সটুডে/বাবুল আখতার/১১

 

 

 

 

ট্যাগ

মন্তব্য