২০১৮-১২-১৮ ১৭:১৬ বাংলাদেশ সময়
  • জেমস জেফরি
    জেমস জেফরি

মার্কিন সরকার বলেছে, তারা আর সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদকে ক্ষমতাচ্যুত করতে চায় না। এক সময় সিরিয়া সংকট প্রসঙ্গে আমেরিকার প্রধান দাবি ছিল সিরিয়ার সরকার পরিবর্তন। কিন্তু সর্বশেষ এ ঘোষণার মাধ্যমে ওয়াশিংটন সে অবস্থান থেকে সরে গেল।

ওয়াশিংটন-ভিত্তিক থিংক ট্যাংক- আটলান্টিক কাউন্সিলে বক্তব্য দিতে গিয়ে আমেরিকার সিরিয়া বিষয়ক বিশেষ প্রতিনিধি জেমস জেফরি তার দেশের নতুন এই অবস্থানের কথা জানান। কূটনৈতিক পরিভাষা ব্যবহার করে তিনি বলেন, “আমরা সিরিয়ার ‘সরকার পরিবর্তন’ চাই না তবে ‘ভিন্ন ধরনের’ সরকার চাই।” জেফরি আরো বলেন, “আমরা সিরিয়ায় এমন একটি সরকার দেখতে চাই যা মৌলিকভাবে ভিন্ন ধরনের। আমরা সরকার পরিবর্তনের কথা বলছি না- আমরা (প্রেসিডেন্ট) আসাদকে ক্ষমতাচ্যুত করতে চাই না।”

প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ

মার্কিন প্রতিনিধি পরিসংখ্যান তুলে ধরে বলেন, সিরিয়ার পুনর্গঠনে ৩০০ থেকে ৪০০ বিলিয়ন ডলার প্রয়োজন। সিরিয়া সরকারের পক্ষ থেকে ভিন্ন ধরনের সরকারের ব্যাপারে কোনো আশ্বাস না পাওয়া পর্যন্ত আন্তর্জাতিক সমাজ দামেস্ককে এই অর্থ দেবে না।

জেফরি বলেন, পশ্চিমা দেশগুলো তহবিল যোগাতে সম্পূর্ণ প্রস্তুত তবে সিরিয়া সরকার নমনীয় না হলে কোনো সাহায্য পাবে না।

সিরিয়ায় ২০১১ সাল থেকে তাণ্ডব চালানো উগ্র জঙ্গি গোষ্ঠীগুলোকে আমেরিকা সহযোগিতা ও পৃষ্ঠপোষকতা দিয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। মার্কিন সরকার বহুবার বিভিন্ন ফোরামে বলেছে, যতদিন প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ ক্ষমতায় আছেন ততদিন সিরিয়ায় শান্তি আসবে না। এ কারণে আসাদ সরকারের বিরুদ্ধে লড়াইরত সব সন্ত্রাসী গোষ্ঠীকে সহযোগিতা দিয়েছে ওয়াশিংটন।

বর্তমানে সিরিয়ার অনুমোদন ছাড়াই সেদেশের উত্তরাঞ্চলে বিপুল সংখ্যক মার্কিন সেনা মোতায়েন রয়েছে। এসব সেনা দামেস্ক-বিরোধী কুর্দি সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোকে সমর্থন দিচ্ছে।#

পার্সটুডে/মুজাহিদুল ইসলাম/১৮

ট্যাগ

মন্তব্য