২০১৯-০৩-১৯ ১৯:০৯ বাংলাদেশ সময়
  • মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের দায়েশ বিরোধী যুদ্ধের দাবি শতাব্দির সবচেয়ে বড় মিথ্যাচার

সিরিয়া দায়েশ বিরোধী মার্কিন নেতৃত্বাধীন কথিত আন্তর্জাতিক জোটকে যুদ্ধাপরাধের দায়ে অভিযুক্ত করেছে।

দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ১৫ মার্চ সিরিয়া সংকট শুরুর বার্ষিকী উপলক্ষে আমেরিকা, জার্মানি, ফ্রান্স ও ব্রিটেন যে বিবৃতি প্রকাশ করেছে তা চরম মিথ্যাচার বরং এ দেশগুলোই সিরিয়াসহ এ অঞ্চলের দেশগুলোর জনগণের বিরুদ্ধে সংঘটিত হত্যাকাণ্ডের মূল হোতা। সিরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আরো জানিয়েছে, সেদেশের পুনর্গঠনের জন্য ওই দেশগুলোকে কখনোই আমন্ত্রণ জানানো হবে না। কারণ ওই দেশগুলোকে অবশ্যই সিরিয়ার জানমাল ও ধ্বংসযজ্ঞের ক্ষয়ক্ষতি পুষিয়ে দিতে হবে।

সিরিয়ায় হস্তক্ষেপ করার জন্য দায়েশ বিরোধী যুদ্ধের কথা বলে মার্কিন নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট গঠন করা হয়। কিন্তু সিরিয়ার মিত্রদের হাতে দায়েশ সন্ত্রাসীরা পরাজিত হওয়ার পরও আমেরিকা সিরিয়া সংকটকে দীর্ঘায়িত করার চেষ্টা করছে। দায়েশ বিরোধী কথিত মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোট ব্যাপক হামলা চালিয়ে সিরিয়ার বহু অবকাঠামো ধ্বংস করে দিয়েছে। বিশেষ করে সিরিয়ার সেনাবাহিনীকে দুর্বল করে দেয়া ছিল তাদের অন্যতম টার্গেট। আর এর মাধ্যমে সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোকে শক্তিশালী করার চেষ্টা চালিয়েছে তারা।

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের সদস্য কয়েকটি দেশও সিরিয়ার বিরুদ্ধে একতরফা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে ওই দেশটির বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক সন্ত্রাসবাদ চালাচ্ছে। সিরিয়া সরকার বহুবার জাতিসংঘ মহাসচিব ও নিরাপত্তা পরিষদের প্রধানের কাছে লেখা চিঠিতে জাতিসংঘ ও সিরিয়া সরকারের অনুমতি ছাড়ই সিরিয়ায় মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের তৎপরতা বন্ধে পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছে। সাবেক প্রেসিডেন্ট ওবামার শাসনামল থেকেই দায়েশ বিরোধী যুদ্ধের কথা বলে তারা ইরাক ও সিরিয়ায় সেনা মোতায়েনের চেষ্টা করে আসছে।

নির্ভরযোগ্য তথ্যপ্রমাণে দেখা গেছে যে, আমেরিকা ও তার পাশ্চাত্যের মিত্র এবং কয়েকটি আরব মিত্র দেশ দায়েশসহ অন্যান্য সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসেবে পরিচিত। কিন্তু তারপরও আমেরিকা সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধের যে কথা বলছে তা  শতাব্দির সবচেয়ে বড় মিথ্যাচার।  

পার্সটুডে/রেজওয়ান হোসেন/১৯

ট্যাগ

মন্তব্য