• নৌমহড়ার আনুষ্ঠানিকতা
    নৌমহড়ার আনুষ্ঠানিকতা

রাশিয়া ও চীন বাল্টিক সাগরে যৌথ সামরিক মহড়া শুরু করেছে। আজ (শুক্রবার) এ মহড়া শুরু হয় এবং এতে দু দেশের বহুসংখ্যক যুদ্ধজাহাজ, সাবমেরিন, হেলিকপ্টার ও যুদ্ধবিমান অংশ নিচ্ছে। মহড়ায় দু দেশের সেনাদের মধ্যে যোগাযোগের মাধ্যম হবে রুশ ভাষা।

বাল্টিক সাগরে এই প্রথম চীন কোনো মহড়ায় অংশ নিচ্ছে। ভারতের ‘নিউজ ভারতী’ নামে একটি ইংরেজি দৈনিকের অনলাইন ভার্সনে বলা হচ্ছে- প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে চীন ও রাশিয়ার এই মৈত্রী বিশ্বের যেকোনো দেশের জন্য ভয়ের কারণ।

‘মেরিটাইম কো-অপারেশন-২০১৭’ নামের এ মহড়া আজ থেকে শুরু হয়ে চলবে আগামী ২৮ জুলাই পর্যন্ত। তবে ২৪ জুলাই থেকে গভীর সাগরে তাজা গুলির মহড়া চলার কথা রয়েছে। মহড়ায় সামরিক নানা প্রশিক্ষণের পাশাপাশি জলদস্যুদের কবল থেকে জাহাজ রক্ষা করা এবং বিপদে পড়া জাহাজগুলোকে অনুসন্ধান ও উদ্ধারের বিষয়েও প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। মহড়ায় চীন তার অত্যাধুনিক কিছু অস্ত্র ও সামরিক সরঞ্জাম পাঠিয়েছে। দু দেশের এ মহড়ার বিশেষ রাজনৈতিক সামরিক গুরুত্ব রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। সামরিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, চলমান মহড়ার মাধ্যমে সারা বিশ্বের জন্য বিশেষ করে মার্কিন নেতৃত্বাধীন ন্যাটো জোটের জন্য এ বার্তা দেয়া হচ্ছে যে, বাল্টিক সাগরসহ যেকোনো জায়গায় রাশিয়ার পাশে রয়েছে চীন। একইভাবে চীনের জন্যও রাশিয়া সামরিক সহায়তার হাত বাড়াতে প্রস্তুত।#

পার্সটুডে/সিরাজুল ইসলাম/২১

 

২০১৭-০৭-২১ ১৯:৩৫ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য