• অত্যাধুনিক এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা
    অত্যাধুনিক এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা

রাশিয়ার কাছ থেকে অত্যাধুনিক এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনার যে চুক্তি করা হয়েছে তার আওতায় মস্কোকে একটি অর্থ পরিশোধ করা হয়েছে বলে তুরস্ক জানিয়েছে। তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগানের বরাত দিয়ে দেশটির হুরিয়াত পত্রিকা এ খবর দিয়েছে।

প্রেসিডেন্ট এরদোগান বলেন, "এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনার যে চুক্তি হয়েছে তাতে আমাদের বন্ধুরা এরইমধ্যে সই করেছেন। আমার জানা মতে, চুক্তির অর্থ মূল্যের একটি অংশ পরিশোধ করা হয়েছে।" এছাড়া ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা সরবরাহের ইস্যুতে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এবং তিনি  দৃঢ়প্রতিজ্ঞাবদ্ধ  বলেও জানান এরদোগান।

রাশিয়ার কাছ থেকে দুটি অত্যাধুনিক এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনার কথা ব্লুমবার্গ গত জুলাইয়ে জানিয়েছিল। তবে সেসময়  রাশিয়া কিংবা  তুরস্কের কোনো পক্ষ থেকেই আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা দেয়া হয় নি। ব্লুমবার্গ আরো বলেছিল, রাশিয়া  ২০১৮ সালের মধ্যে তুরস্কে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা পাঠাবে। এছাড়া, চুক্তির আওতায় স্থানীয়ভাবে আরো দুটি ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা তৈরিতে তুরস্ককে সহযোগিতা দেবে রাশিয়া এবং তুর্কি সরকার এর জন্য ২৫০ কোটি ডলার ব্যয় করবে।

এ খবর সত্য হলে তা হবে মার্কিন নেতৃত্বাধীন ন্যাটো সামরিক জোটের জন্য চরম চপেটাঘাত। কারণ তুরস্ক হচ্ছে ন্যাটোর একমাত্র মুসলিম সদস্য দেশ কিন্তু অস্ত্র কিনছে রাশিয়া থেকে। ন্যাটো সবসময় রাশিয়াকে প্রধান শত্রুদেশ হিসেবে বিবেচনা করে থাকে। এছাড়া, তুরস্ক যাতে রাশিয়ার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক তৈরি না করে সেজন্য আমেরিকা ও তার মিত্ররা বহুদিন থেকে চেষ্টা চালাচ্ছে।#

পার্সটুডে/বাবুল আখতার/১২

 

২০১৭-০৯-১২ ১৮:২৯ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য