২০১৮-০১-১৯ ১০:০৯ বাংলাদেশ সময়
  • ২০১৭ সালের মে মাসে রাশিয়ার বিজয় দিবসের প্যারেডে এস-৪০০ ব্যবস্থা প্রদর্শন করা হয় (ফাইল ছবি)
    ২০১৭ সালের মে মাসে রাশিয়ার বিজয় দিবসের প্যারেডে এস-৪০০ ব্যবস্থা প্রদর্শন করা হয় (ফাইল ছবি)

রাশিয়া চীনের কাছে অত্যাধুনিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা এস-৪০০ সরবরাহ করা শুরু করেছে বলে রুশ সামরিক বাহিনীর একটি ঘনিষ্ঠ সূত্র জানিয়েছে। এই ব্যবস্থা কেনার জন্য চীন ২০১৪ সালে রাশিয়ার সঙ্গে চুক্তি সই করেছিল।

রুশ সামরিক বাহিনীর নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সূত্রের বরাত দিয়ে রাশিয়ার গণমাধ্যম জানিয়েছে, “চুক্তির বাস্তবায়ন শুরু হয়েছে এবং এই ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থার প্রথম চালানটি চীনে পাঠানো হয়েছে।”

প্রথম চালানে যেসব সামগ্রী পাঠানো হয়েছে সেগুলোর মধ্যে রয়েছে, একটি কন্ট্রোল স্টেশন, একটি রাডার স্টেশন, জ্বালানী ও সহায়ক যন্ত্রপাতি এবং খুচরা যন্ত্রাংশ।  

সূত্রটি জানিয়েছে, চুক্তি অনুযায়ী চীনকে এই ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার প্রযুক্তি বা উৎপাদনের লাইসেন্স দেবে না রাশিয়া। তবে মস্কো এরইমধ্যে এই ব্যবস্থা পরিচালনার জন্য চীনা সামরিক বাহিনীর একটি প্রকৌশলী টিমকে প্রশিক্ষণ দিয়েছে।

২০১৪ সালে বেইজিং ও মস্কোর মধ্যে এস-৪০০ সরবরাহের চুক্তি স্বাক্ষরিত হলেও রাশিয়া এক বছর পর বিষয়টি নিশ্চিত করে। রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সামরিক সহযোগিতা বিষয়ক উপদেষ্টা ভ্লাদিমির কোঝিন ২০১৫ সালের নভেম্বরে প্রথম এ সম্পর্কে গণমাধ্যমকে তথ্য জানান।

এরপর সামরিক সরঞ্জাম উৎপাদনের রাষ্ট্রীয় কোম্পানি রোস্তেক স্টেট কর্পোরেশনের প্রধান সের্গেই চেমেঝোভ বলেন, ২০১৮ সালের আগে এস-৪০০ হাতে পাবে না চীন।

ওই চুক্তির মাধ্যমে রাশিয়ার কাছ থেকে এই ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা কেনার প্রথম দেশে পরিণত হয় চীন। এরপর তুরস্ক দ্বিতীয় ক্রেতা হিসেবে রাশিয়ার সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়। ২০১৭ সালের ১২ সেপ্টেম্বর রাশিয়া এ খবরে সত্যতা নিশ্চিত করে যে, তুরস্ক ২৫০ কোটি ডলার ব্যয়ে মস্কোর কাছ থেকে দু’টি এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা কিনতে যাচ্ছে।#

পার্সটুডে/মুজাহিদুল ইসলাম/১৯

 

ট্যাগ

মন্তব্য