• শাহিদ খাকান আব্বাসি
    শাহিদ খাকান আব্বাসি

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহিদ খাকান আব্বাসি ছয় দিনের 'ব্যক্তিগত' সফরে আমেরিকায় গেছেন। তার এ সফরের উদ্দেশ্য নিয়ে পাকিস্তানে নানা জল্পনা সৃষ্টি হয়েছে।

মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স

গতকাল ছয় দিনের সফরে পাকিস্তান ত্যাগ করেন আব্বাসি। ট্রাম্প প্রশাসনের শক্তিশালী কারো কারো সঙ্গে তার 'গুরুত্বপূর্ণ' কাজ আছে বলে কোনো কোনো মহল থেকে বলা হচ্ছে। পাকিস্তানের ক্ষমতাসীন দল মুসলিম লীগ নওয়াজ এবং বিশেষ করে শরিফ পরিবার বর্তমানে রাজনৈতিক সংকট মোকাবেলা করছে। এ সংকট মোকাবিলায় পাক প্রধানমন্ত্রী ট্রাম্প প্রশাসনের সমর্থন লাভের চেষ্টা করবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। অনানুষ্ঠানিকভাবে তিনি মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের সঙ্গে যোগাযোগ করবেন।

অবশ্য, এ সফর নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছুই জানানো হয়নি। আব্বাসির ঘনিষ্ঠ সূত্র থেকে অনানুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয় যে, ফিলাডেলফিয়ায় পাক প্রধানমন্ত্রীর এক বোনের অপারেশন হওয়ার কথা রয়েছে। বৃহস্পতিবার এ অপারেশন হবে এবং তাকে দেখতে এ সফরে গেছেন তিনি। 

পেন্সের সঙ্গে আব্বাসির আলোচনার বিষয় নিয়ে অনেকে অনেক কথা বলছেন। অবশ্য  পাক সরকারি কর্মকর্তাদের কথাবার্তা থেকে এ ধারণা সৃষ্টি হয়েছে যে পররাষ্ট্র নীতি বহির্ভূত বিষয়ে আলোচনা করবেন পেন্স ও আব্বাসি।

এদিকে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আগে কূটনৈতিক দায়িত্ব পালন করেছেন এমন এক পাক কর্মকর্তা ভিন্ন মন্তব্য করেছেন। তিনি বলেছেন, কূটনৈতিক লক্ষ্য অর্জনকে সামনে রেখে অনেক সময়ই রাষ্ট্র বা সরকার প্রধানরা খানিকটা চুপিসারে সফর করেন। অবশ্য সে সময়ে পররাষ্ট্র নীতি সংক্রান্ত বিশেষজ্ঞ, কূটনীতিবিদ এবং গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের একটি দল তাদের সফরসঙ্গী থাকেন। কিন্তু এ সফরে প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা ছাড়া আর কেউ পাক প্রধানমন্ত্রীর সফর সঙ্গী হননি। তাই মনে হচ্ছে আপাতদৃষ্টিতে যা দেখা যাচ্ছে সফরের উদ্দেশ্য তা নয়। পাকিস্তানের রাজনৈতিক বিশ্লেষক কানওয়ার দিলশাদ এ বক্তব্য সমর্থন করেছেন।#

পার্সটুডে/মূসা রেজা/২০

 

ট্যাগ

২০১৮-০৩-২০ ১৬:২৬ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য