• ইরানের জাতীয় ফুটবল দলের কোচ কার্লোস কেইরুস
    ইরানের জাতীয় ফুটবল দলের কোচ কার্লোস কেইরুস

মার্কিন ক্রীড়া সামগ্রী প্রস্তুতকারী সংস্থা ‘নাইকি’-কে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের জাতীয় ফুটবল দলের কোচ কার্লোস কেইরুস। তিনি বলেছেন, বিশ্বকাপের আগ মুহূর্তে ইরানি ফুটবল দলকে বুট সরবরাহ না করার ঘোষণা দেওয়ার কোনো প্রয়োজনই ছিল না। কারণ সবাই মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কথা জানে। এ অবস্থায় বিবৃতি দিয়ে নাইকি দাম্ভিকতা প্রকাশ করেছে।

তিনি বলেন, এটি একটি হাস্যকর পদক্ষেপ। এ জন্য এই কোম্পানিকে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমতা চাইতে হবে। স্কাই স্পোর্টস টেলিভিশনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এসব কথা বলেছেন। এ বিষয়ে নাইকির বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে আন্তর্জাতিক ফুটবল সংস্থা ফিফার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। নাইকি'র এ ধরনের বিবৃতি খেলোয়াড়দের মানসিক অবস্থার জন্য নেতিবাচক বলে তিনি ইঙ্গিত করেন।   

ইরানি খেলোয়াড়দের মাঝে কোচ কার্লোস কেইরুস

বিশ্বকাপ শুরুর মাত্র কয়েক দিন আগে হঠাৎ করেই ক্রীড়া সামগ্রী প্রস্তুতকারী সংস্থা ‘নাইকি’ জানিয়ে দিয়েছে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কারণে ইরানি ফুটবল দলকে বুট সরবরাহ করতে পারবে না তারা। যদিও ২০১৪ সালে নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও ব্রাজিল বিশ্বকাপে তারাই ইরান দলকে বুট সরবরাহ করেছিল। রাশিয়া বিশ্বকাপের জন্যও চুক্তি হয়েছিল। কিন্তু বিশ্বকাপ শুরুর মাত্র কয়েক দিন আগে প্রতিষ্ঠানটি নিজেদের অপারগতার কথা জানিয়েছে।

নাইকি জানিয়েছে, ইরানের বিরুদ্ধে বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক অবরোধের কারণেই তারা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ২০১৫ সালে ইরানের সঙ্গে সম্পাদিত পরমাণু  সমঝোতা থেকে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সম্প্রতি বেরিয়ে গেছেন। প্রশ্ন উঠেছে, ২০১৪ ব্রাজিল বিশ্বকাপের সময় একই ধরনের অর্থনৈতিক অবরোধ থাকার পরও নাইকি কিভাবে ইরানি দলকে ক্রীড়া সামগ্রী দিয়েছিল? অনেকেই বলছেন, ইরানি দলের মনোবল ভাঙতেই এই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।#

পার্সটুডে/সোহেল আহম্মেদ/১৩

 

২০১৮-০৬-১৩ ১৭:১৫ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য