• শিশুদের খুশির জোয়ার ছিল দেখার মতো
    শিশুদের খুশির জোয়ার ছিল দেখার মতো

চলমান রাশিয়া বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম খেলায় আফ্রিকার শক্তিশালী দল মরক্কোকে ১-০ গোলে হারানোর পর ইরানের রাজধানী তেহরানসহ সারা দেশে মানুষ আনন্দ প্রকাশ করতে রাস্তায় নেমে আসে। তেহরানের রাস্তায় রাস্তায় গভীর রাত পর্যন্ত শিশু-কিশোর, তরুণ-তরুণী এমনকি বয়স্করাও উল্লাস প্রকাশ করেন।

খেলা শেষ হওয়ার পরপরই জাতীয় পতাকা হাতে নিয়ে ইরানিরা রাস্তায় নেমে আসেন। তারা ইরানি ফুটবল দলের প্রশংসা করে নানারকম শ্লোগান দেন। কেউ কেউ বাঁশি বাজিয়ে, আতশবাজি পুড়িয়ে আনন্দ প্রকাশ করেন।

ইরানি কোচ কার্লোস কেইরোজকে নিয়ে খেলোয়াড়দের উল্লাস

গাড়ি চালকরা বারবার হুইসেল বাজিয়ে উল্লাস প্রকাশ করেন। লোকজন রাস্তায় নেমে আসায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। তবে, খুশীর জোয়ারে ভাসতে থাকা ইরানিদের কাছে যানজটে আটকে থাকাকে কোনো কষ্টই মনে হয়নি।

পাঁচবার বিশ্বকাপের চূড়ান্ত পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জনকারী ইরানের এটি দ্বিতীয় জয়। এর আগে ১৯৯৮ সালে বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো আমেরিকার বিরুদ্ধে ২-১ গোলে জয় পায় ইরান।

তেহরানের রাজপথে এভাবেই আনন্দ প্রকাশ করে জনতা

ম্যাচের ৯৩ মিনিটে ইরানের করা একটি কর্নার থেকে বল বিপদমুক্ত করতে যেয়ে মরক্কোর ডিফেন্ডার আজিজ বুহাদুজের নিজের জালেই গোল দিয়ে বসেন। ১-০ জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে ইরান।

বি গ্রুপের অপর দুই দেশ স্পেন ও পর্তুগাল ড্র করায় ইরান ৩ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে অবস্থান করছে। স্পেন অথবা পর্তুগালের মধ্যে একটি দলকে হারিয়ে দিতে পারলেই প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের নক আউট পর্বে খেলতে পারবে। আগামী ২০ জুন স্পেনের বিপক্ষে এবং ২৫ জুন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর পর্তুগালের বিপক্ষে খেলবে ইরান।#

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/১৬   

 

২০১৮-০৬-১৬ ০৯:০৪ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য