• শোয়েব মালিকের সঙ্গে জয় উদযাপন করছেন হাসান আলী
    শোয়েব মালিকের সঙ্গে জয় উদযাপন করছেন হাসান আলী

এশিয়া কাপের সুপার ফোরের দ্বিতীয় ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে তিন উইকেটের রোমাঞ্চকর জয় পেয়েছে পাকিস্তান। গ্রুপ পর্বে শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশকে হারিয়ে উড়তে থাকা আফগানদের মাটিতে নামিয়ে ‌আনল সরফরাজ আহমেদের দল।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাজধানী আবুধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে‍ টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ৬ উইকেটে ২৫৭ রান করে আফগানিস্তান। জবাবে বাবর আজম, ইমাম-উল-হক ও শোয়েব মালিকের হাফসেঞ্চুরিতে ৪৯.৩ ওভারে ৭ উইকেটে হারিয়ে পাকিস্তান জয় নিশ্চিত করে।

তবে, আফগানদের দেয়া ২৫৮ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শূন্য রানেই উইকেট হারান ওপেনার ফখর জামান। কিন্তু এরপরই প্রতিরোধ গড়ে তোলেন ইমাম-উল-হক (৮০) ও বাবর আজম (৬৬)। মাঝখানে রশিদ খান আর মুজিবের বোলিং তাণ্ডবে খেই হারিয়ে ফেললেও দলের ভীষণ প্রয়োজনের সময় হাল ধরলেন শোয়েব মালিক। মুজিব উর রহমান, রশিদ খানের স্পিন ভেলকি সামলে ঠাণ্ডা মাথায় পথ দেখান দলকে। তার দায়িত্বশীল ইনিংসে রুদ্ধশ্বাস উত্তেজনার ম্যাচে আফগানিস্তানকে হারাল পাকিস্তান।

৮০ রানের ইনিংস খেলেন ইনাম-উল-হক

শেষ দুই ওভারে জয়ের জন্য পাকিস্তানের প্রয়োজন ছিল ১৮ রান। ৪৯তম ওভারে বল করতে এলেন আফগানিস্তানের সুপার স্পিনার রশিদ খান। প্রথম দুই বলে দুই সিঙ্গেল নিয়ে প্রান্ত বদল করলেন দুই পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান শোয়েব মালিক ও মোহাম্মদ নওয়াজ। তৃতীয় বলেই মোহাম্মদ নওয়াজের স্ট্যাম্প উড়িয়ে দিয়ে জয়ের স্বপ্ন জাগিয়েছিলেন রশিদ। কিন্তু ওভারের চতুর্থ বলেই দারুণ এক ছক্কা হাঁকান হাসান আলী। বাকি দুই বল কোনো রান খরচ করেন নি রশিদ। শেষ ওভারে দরকার ১০ রান। ক্রিজে অভিজ্ঞ শোয়েব মালিক। মুখোমুখি হওয়া দ্বিতীয় বলেই ডিপ স্কয়ারে বিশাল ছক্কা হাঁকিয়ে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ তুলে নেন এই অলরাউন্ডার। পরের বলেই বাউন্ডারি হাঁকিয়ে জয় ছিনিয়ে নেন তিনি।

আফগানিস্তানের হয়ে রশিদ খান নেন সবচেয়ে বেশি ৩ উইকেট। দুটি পান মুজিব। একটি উইকেট সংগ্রহ করেন গুলবদিন নাঈব।

এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি আফগানিস্তানের। দলীয় ২৬ রানে ইহসানুল্লাহ’র (১০) স্কোর বোর্ডে আর ৫ রান যোগ করতেই আরেক ওপেনার মোহাম্মদ শাহজাদকেও (২০) তুলে নেন পাকিস্তানের পেসার মোহাম্মদ নওয়াজ। এরপর রহমত শাহর সঙ্গে ৬৩ রানের জুটিতে শুরুর ধাক্কা সামাল দিয়ে দলকে এগিয়ে নেন হাসমতউল্লাহ। দলীয় ৯৪ রানে রহমত শাহ আউট হলে খেলতে নামেন অধিনায়ক আসগর আফগান। তার সঙ্গে হাসমতউল্লাহর ৯৪ রানের জুটিতে এগিয়ে যায় আফগানিস্তান। ৫৬ বলে ৫ ছক্কা আর দুই চারে ৬৭ রান করা আসগরকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙেন শাহিন শাহ আফ্রিদি।

৪২ ওভারে ১৮৮ রানে ৪ উইকেট হারানো আফগানিস্তানের সংগ্রহ আড়াইশ ছাড়ায় হাশমতউল্লাহর দৃঢ়তায়। শুরুতে মন্থর ব্যাটিং করা মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান শেষের দিকে ঝড় তোলেন। ইনিংসের শেষ পর্যন্ত খেলে ১১৮ বল মোকাবেলা করে ৯৭ রানে অপরাজিত থাকেন হাসমতুল্লাহ। তার দুর্দান্ত এই ইনিংসেই নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ২৫৭ রানের লড়াকু পুঁজি সংগ্রহ করে আফগানিস্তান।

৩ উইকেট নিলেও পাকিস্তানকে আটকাতে পারেননি রশিদ খান

পাকিস্তান দলে ফেরা বাঁহাতি স্পিনার মোহাম্মদ নওয়াজ ৩ উইকেট নেন ৫৭ রানে। অভিষিক্ত পেসার আফ্রিদি ২ উইকেটে নেন ৩৮ রানে।

বল হাতে পাকিস্তানের সবচেয়ে সফল মোহাম্মদ নওয়াজ। ১০ ওভারে ৫৭ রানে ৩ উইকেট তুলে নিয়েছেন এই বোলার। ২ উইকেট পেয়েছেন শাহিন শাহ আফ্রিদি।

৩ চার ও ১ ছক্কায় ৪৩ বলে খেলা অপরাজিত ৫১ রানের ইনিংস খেলে ম্যাচ জেতানোয়  ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন শোয়েব মালিক।#

পার্সটুডে/আশরাফুর রহমান/২২

ট্যাগ

২০১৮-০৯-২২ ০৩:০৯ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য