• বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র-সেতু উদ্বোধন করেছে চীন
    বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র-সেতু উদ্বোধন করেছে চীন

চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘ সমুদ্র-সেতুর উদ্বোধন করেছেন। এ সেতুর মাধ্যমে চীনের মূল ভূখণ্ডের সঙ্গে হংকং ও ম্যাকাওয়ের সংযোগ সৃষ্টি হয়েছে। নির্মাণকাজ শুরুর নয় বছর পর চালু হলো এই সেতু।

‘হংকং-ঝুহাই-ম্যাকাও ব্রিজ’ নির্মাণে দু হাজার কোটি ডলার ব্যয় হয়েছে এবং সেতুতে ব্যবহার করা হয়েছে চার লাখ টন স্টিল। আগামীকাল (বুধবার) থেকে সেতুটি যাতায়াতের জন্য ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকবে। এই সেতু দিয়ে ম্যাকাও ও হংকংয়ের যাত্রী এবং যানবাহনগুলো সরাসরি বিভিন্ন গন্তব্যে যাতায়াত করতে পারবে। সেতুটি দেখতে অনেকটা সাপের মতো আকৃতির।

বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র-সেতু

চীনের নদী পার্ল রিভারের ওপর দিয়ে সেতুটি সমুদ্র পার হয়ে চলে গেছে ওপারে। এর মধ্যে একটা অংশে রয়েছে পনির নিচে সুড়ঙ্গ পথ। হংকং থেকে ম্যাকাওয়ে সড়কপথে যাতায়াতে তৈরি এ সেতু ৫৫ কিলোমিটার দীর্ঘ। যাত্রাপথে সেতুটি আরো ১১টি বড় শহরকে যুক্ত করেছে। দক্ষিণ চীনের ৫৬ হাজার ৫০০ বর্গকিলোমিটার এলাকার ছয় কোটি ৮০ লাখ মানুষ এ সেতুর সুবিধা পাবে। এ সেতু চালু হওয়ায় হংকং ও ম্যাকাওয়ের মধ্যে আড়াই ঘণ্টার দূরত্ব কমে এসেছে। আগের তিন ঘণ্টার পথ এখন আধা ঘণ্টায় যাতায়াত করা যাবে।

এই সেতুতে চলতে হলে প্রাইভেট কারকে বিশেষ অনুমতি নিতে হবে। সেতুটি ব্যবহারের ক্ষেত্রে পর্যটকদের সুবিধার কথা চিন্তা করে ম্যাকাও এবং ঝুহাইয়ের মধ্যে কাস্টমসের ছাড়পত্র নিতে হবে। পর্যটকদের জন্য দুই ধরনের সরকারি যানবাহন থাকবে। এর মধ্যে একটি নিয়মিত বাস সার্ভিস। অন্যটি শাটল সার্ভিস। প্রাথমিকভাবে প্রতিদিন নয় হাজারের বেশি যান এই সেতু দিয়ে চলাচল করবে।

চীনা কর্তৃপক্ষ আশা করছে, এই সেতু অর্থনীতিতে যোগ করবে প্রায় ১০ ট্রিলিয়ন ডলার। এই সেতু থেকে প্রতিবছর শুল্কের মাধ্যমে আয় হবে আট কোটি ৬০ লাখ ডলার।#

পার্সটুডে/এসআইবি/২৩

ট্যাগ

২০১৮-১০-২৩ ১৯:১৩ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য