• শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট
    শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট

শ্রীলঙ্কার সংসদ ভেঙে দেওয়ার সিদ্ধান্ত বাতিল করে আগাম নির্বাচনের প্রস্তুতি বন্ধের নির্দেশ জারি করেছে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। আজ (মঙ্গলবার) সুপ্রিম কোর্টের তিন বিচারকের একটি বেঞ্চ এ নির্দেশ জারি করেছে।

গত ২৬ অক্টোবর প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা সেদেশের প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে-কে বরখাস্ত করে সাবেক প্রেসিডেন্ট মাহিন্দা রাজাপক্ষে-কে ওই পদে নিয়োগ দেন। এরপর গত সপ্তাহে সংসদ ভেঙে আগামী পাঁচ জানুয়ারি আগাম নির্বাচন অনুষ্ঠানের ঘোষণা দেন তিনি। এরপরই শ্রীলঙ্কার তিনটি রাজনৈতিক দল প্রেসিডেন্টের সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে রিট পিটিশন দায়ের করে।

লঙ্কার সংবিধানের ১৯তম সংশোধনী অনুযায়ী, সংসদে ভোটাভুটি ছাড়া প্রধানমন্ত্রীকে প্রেসিডেন্ট বরখাস্ত করতে পারবেন না। আর পার্লামেন্টে ভোট হলে বিক্রমাসিংহেকে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে সরানো যাবে না। কারণ, সিরিসেনার দল ইউনাইটেড পিপলস ফ্রিডম অ্যালায়েন্স (ইউপিএফএ) ও রাজাপক্ষের দল শ্রীলঙ্কা ফ্রিডম পার্টির মিলিত আসনের সংখ্যা ৯৫ এবং বিক্রমাসিংহের দল ইউএনপির আসনসংখ্যা ১০৬।

২০১৫ সালে দীর্ঘ সময় ধরে প্রেসিডেন্ট পদে থাকা রাজাপক্ষেকে হারিয়ে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন সিরিসেনা। ওই সময় সিরিসেনার জোটে ছিলেন বিক্রমাসিংহে। তবে সিরিসেনা ও বিক্রমাসিংহে'র মধ্যে নানা সময়েই মতবিরোধ দেখা দেয়। সবশেষ ভারতকে একটি বন্দর লিজ দেওয়ার ব্যাপারে সরকারের পরিকল্পনা নিয়ে এই দুজনের মধ্যে চরম মতবিরোধ দেখা দিয়েছে।#

পার্সটুডে/সোহেল আহম্মেদ/১৩

ট্যাগ

২০১৮-১১-১৩ ১৯:২৩ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য