• ইসলামাবাদে মার্কিন চার্জ দ্যা অ্যাফেয়ার্স পল জোন্স
    ইসলামাবাদে মার্কিন চার্জ দ্যা অ্যাফেয়ার্স পল জোন্স

মার্কিন চার্জ দ্যা অ্যাফেয়ার্স পল জোন্সকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করেছে পাকিস্তান। কথিত সন্ত্রাসবাদ-বিরোধী যুদ্ধের জন্য আমেরিকার শত শত কোটি ডলার অর্থসাহায্যের বিপরীতে পাকিস্তান কিছুই করে নি বলে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মন্তব্য করার পর ইসলামাবাদ মার্কিন কূটনীতিককে তলব করল। আল-কায়েদা নেতা ওসামা বিন লাদনকে পাকিস্তান লুকিয়ে রেখেছিল বলেও ট্রাম্প অভিযোগ করেছেন।

পাক পররাষ্ট্র দপ্তর আজ (মঙ্গলবার) এক বিবৃতিতে বলেছে, “পররাষ্ট্র সচিব তাহমিনা জানজুয়া মার্কিন চার্জ দ্যা অ্যাফেয়ার্সকে ডেকে পাকিস্তান-বিরোধী অনাকাঙ্ক্ষিত ও ভিত্তিহীন বক্তব্যের কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছেন।”

গত রোববার ফক্স নিউজ টেলিভিশন চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প বলেন, “২০১১ সালে মার্কিন সেনারা বিন লাদেনকে পাকিস্তানের ভেতরে হত্যা করে তবে এর আগে তার অবস্থান সম্পর্কে পাক সরকার জানতো। বিন লাদেন পাকিস্তানের একটি সামরিক একাডেমির পাশে সুন্দর একটি বাড়িতে বসবাস করছিলেন এবং সবাই জানত যে, বিন লাদেন সেখানে থাকে।” এছাড়া, পাকিস্তানকে যে সামরিক খাতে অর্থ সহায়তা দেয়া বন্ধ করেছে মার্কিন সরকার তার পক্ষেও সাফাই গেয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

পাক পররাষ্ট্র সচিব তাহমিনা জানজুয়া

ট্রাম্পের এ অভিযোগ নাকচ করে পাক পররাষ্ট্র সচিব মার্কিন দূতকে স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন যে, পাকিস্তানি গোয়েন্দাদের সহায়তায় আমেরিকা বিন লাদেনকে খুঁজে পেয়েছিল। কিন্তু এ ইস্যুতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যে ভিত্তিহীন বক্তব্য দিয়েছেন তা একেবারেই অগ্রহণযোগ্য।  

এর আগে, ট্রাম্পের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান টুইটার বার্তায় বলেছেন, “৯/১১ হামলায় কোনো পাকিস্তানি জড়িত না থাকা সত্ত্বেও ইসলামাবাদ আমেরিকার সন্ত্রাস-বিরোধী যুদ্ধে অংশগ্রহণ করে। এই যুদ্ধে ৭৫ হাজার পাকিস্তানি নিহত হয়েছে এবং দেশটির আর্থিক ক্ষতি হয়েছে ১২৩ বিলিয়ন ডলার। অথচ আমেরিকা কথিত সাহায্য দিয়েছে মাত্র ২০ বিলিয়ন ডলার।”#

পার্সটুডে/এসআইবি/২০

ট্যাগ

২০১৮-১১-২০ ১৯:৪৭ বাংলাদেশ সময়
মন্তব্য