২০১৯-০৪-২৬ ১১:৫৩ বাংলাদেশ সময়
  • \\\\\\\'বিদায় নিচ্ছে ডলার, জমছে সোনা\\\\\\\'
    \\\\\\\'বিদায় নিচ্ছে ডলার, জমছে সোনা\\\\\\\'

রাশিয়া চলতি বছরের প্রথম তিন মাসে ৫৫.৯৮ টন সোনা কিনেছে। গত পাঁচ বছরের বেশি সময় ধরে দেশটি বছরে গড়ে ২০০ টনের বেশি সোনা কিনছে। বৈদেশিক মুদ্রার মজুত বাড়ানোর ক্ষেত্রে ডলারের ওপর নির্ভরতা কমানোর অংশ হিসেবে এভাবে সোনা কিনছে দেশটি।

বর্তমানে রাশিয়ার মজুদকৃত বৈদেশিক মুদ্রার এক পঞ্চমাংশ সোনা। ২০১৭ সালে দেশটির বৈদেশিক মুদ্রার মোট মজুদের ৪৬ শতাংশ ছিল ডলার। কিন্তু ২০১৯ সালের প্রথম দিকে ডলার মজুদের পরিমাণ কমে ২২ শতাংশে এসে ঠেকেছে। অর্থনীতিবিদরা বলছেন, ডলার মজুদের পরিমাণ আরও কমিয়ে আনবে রাশিয়া। আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে ডলার তেমন আনুকূল্য পাচ্ছে না বলেই  মার্কিন মুদ্রার মজুদ হ্রাস করছে রাশিয়া।

আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে ডলার তেমন আনুকূল্য পাচ্ছে না বলেই মার্কিন মুদ্রার মজুদ হ্রাস করছে রাশিয়া

গত বছর সোনা মজুদের ক্ষেত্রে চীনকে টপকে বিশ্বে পঞ্চম অবস্থানে চলে এসেছে রাশিয়া।  এক্ষেত্রে তৃতীয় এবং চতুর্থ অবস্থানে থাকা যথাক্রমে ইতালি ও ফ্রান্সকে অতিক্রম করতে রাশিয়ার বেশি সময় লাগবে বলে মনে হয় না। ইতালির মজুদের পরিমাণ ২৪৫১.১ এবং ফ্রান্সের ২৪৩৬ টন। এ হিসাব দিয়েছে বিশ্ব স্বর্ণ পরিষদ। রুশ কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হিসাব অনুযায়ী, চলতি বছরের ১ এপ্রিল দেশটির স্বর্ণের মজুদের পরিমাণ ছিল ২১৬৭.৯১ টন।

সোনা মজুদের তৎপরতা তুলনামূলক অল্প সময়ের মধ্যেই করেছে রাশিয়া। ১৯৯৩ সালে রুশ মোট মজুদের পরিমাণ ছিল মাত্র ২৬৭.২৮ টন। আর ২০১৪ সালে এর পরিমাণ এক হাজার টনেরও নিচে ছিল। কিন্তু এরপর থেকেই প্রতিবছর গড়ে ২০০ টনের বেশি সোনা মজুদের তৎপরতায় নামে রাশিয়া।#  

পার্সটুডে/মূসা রেজা/২৬

 

ট্যাগ

মন্তব্য